বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, শুধু স্বাধীন সাংবাদিকতার ওপর আঘাতই নয়, পক্ষান্তরে আশ্রয়–প্রশ্রয় দেওয়া হয়েছে দুর্নীতি ও লুটপাটের বরপুত্রদের। অনতিবিলম্বে রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি দিয়ে অনিয়ম ও দুর্নীতি বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান সাংবাদিকনেতারা।

default-image

পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে সচিবালয়ে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিবের একান্ত সচিবের কক্ষে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে হেনস্তা করা ন্যক্কারজনক। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সব লুটপাট ও কলঙ্কের মধ্যে এটা একটি নিকৃষ্টতম ঘটনা। পাঁচ ঘণ্টা অবরুদ্ধ থেকে রোজিনা অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে হাসপাতালে না নিয়ে থানায় নেওয়া হয় এবং অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা করে তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এটা অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা এবং মুক্ত গণমাধ্যমের প্রতি আক্রোশের প্রতিফলন। রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা করার পেছনে দায়ী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করে তাঁদের শাস্তি ও অবিলম্বে তাঁর মুক্তির দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিকেরা।

*লেখক: বকুল খান, স্পেন

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন