বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মুহতাজকে কাছে পেয়ে তরুণী ফুটবলাররা কিছুটা আবেগঘন সময় পার করেন। তিনি আরও জানান, খেলোয়াড়েরা তাঁদের ভালোবাসার খেলাটি খেলতে পারবেন, সে বিষয়টি নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই তাঁদের এই পদক্ষেপ নেওয়া।

default-image

পর্তুগালে পৌঁছার পর ১৫ বছর বয়সী নারী ফুটবলার সারাহ বলেন, ‘দেশ ছাড়াটা কারও জন্যই কাম্য না হলেও সেখানে আমরা অনিশ্চয়তায় ছিলাম। কিন্তু সেদিক থেকে চিন্তা করলে, পর্তুগালে আমরা অনেক নিরাপদ অনুভব করছি।’ তাঁর স্বপ্ন সম্পর্কে জানতে চাইলে, বিশ্বসেরা ফুটবলার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে দেখা করা এবং পাশাপাশি একজন বড় ব্যবসায়ী হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন সারাহ।

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন