বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাই কমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ বাংলাদেশকে কখনো সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র হতে দেবে না।

আয়োজকদের পক্ষে উর্মী মাজহার বলেন, বাংলাদেশের মানুষ অসাম্প্রদায়িক চেতনা থেকে মুক্তিযুদ্ধ করে একটি স্বাধীন দেশ অর্জন করেছে। সেই দেশ কখনো সাম্প্রদায়িক হতে পারে না। অনুষ্ঠানে পূর্ব লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নির্বাহী মেয়র জন বিগস, স্পিকার আহবাব হোসেনসহ টাওয়ার হ্যামলেটস ও নিউহ্যাম কাউন্সিলের পদস্থ ব্যক্তিরা, বাংলাদেশি রাজনীতিবিদ এবং স্থানীয় ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

এই আয়োজনে সাংগঠনিকভাবে যোগ দেয় উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী যুক্তরাজ্য, সত্যেন সেন স্কুল অব পারফর্মিং আর্টস, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি যুক্তরাজ্য, সম্মিলিত সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদ যুক্তরাজ্য, গৌরী চৌধুরীস সুরালয়, সপ্তসুর, রেইনবো ফিল্ম সোসাইটি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই ইউকে, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র ইউকে, বাংলাদেশ টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন, বিজয়ফুল ইউকে, হাসন মিউজিক্যাল গ্রুপ ইউকে।

অনুষ্ঠানে সংগীত পরিচালনায় ছিলেন বিশিষ্ট শিল্পী ও সুরকার সঞ্জয় দে। তিনি এর পরিচিতি গানটিরও সুরারোপ করেন। অনুষ্ঠানে চিত্রসম্পাৎ এবং কারিগরি নির্দেশনায় ছিলেন মকবুল চৌধুরী। সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন জয়দ্বীপ রায়, নজরুল ইসলাম, মুরাদ খান, মুনীরা পারভীন, জুয়েল রাজ, গোপাল দাশ, শাহাব আহমেদ বাচ্চু প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি শেষ হয় সমবেত কণ্ঠে ‘আমরা করব জয়’ গানের মধ্য দিয়ে।

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন