default-image

স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজে প্রথমবারের মতো সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রীয় পদক ‘প্রেসিডেন্টস ভলান্টিয়ারিজম অ্যান্ড ফিল্যানন্ট্রোফি অ্যাওয়ার্ড (পিভিপিএ)’ পেয়েছেন দুজন বাঙালি। তাঁরা হলেন ওমর ফারুক শিপন ও কবির হোসেন। ১৬ অক্টোবর বিকেলে সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রপতির বাসভবন ইস্তানায় দেশটির রাষ্ট্রপতি হালিমা ইয়াকুব তাঁদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন।
গত দুই বছরের ধারাবাহিকতায় এ বছরও এই পুরস্কারের আয়োজন করেছিল ন্যাশনাল ভলান্টিয়ারিজম অ্যান্ড ফিল্যানন্ট্রোফি সেন্টার (এনভিপিসি)।

বিজ্ঞাপন

রাষ্ট্রপতি হালিমা ইয়াকুব বলেন, আমি কয়েক মাস ধরে দেখছি সিঙ্গাপুরে বিভিন্ন শ্রেণি–পেশার মানুষ তাঁদের নিজ জায়গা থেকে উঠে এসে অন্যদের সাহায্য করছেন। বৈশ্বিক মহামারি করোনার খুব কঠিন সময়েও মানুষের মানবতার এ অন্যান্য দৃষ্টান্ত আমাকে অনুপ্রাণিত করে।
পিপল অব গুড ক্যাটাগরিতে পুরস্কার বিজয়ী হয়েছেন বাংলাদেশি ওমর ফারুক শিপন। ওমর ফারুক সার্কিট ব্রেকারের (লকডাউন) শুরু থেকেই সিঙ্গাপুরের প্রবাসীদের জন্য তথ্য প্রকাশের লক্ষ্যে প্রতিদিন ফেসবুক পেজ থেকে কোভিডসংক্রান্ত খবর, তথ্য ও ভিডিওবার্তা বাংলায় প্রকাশ করেন। তাঁর প্রতিদিনের তথ্য বাঙালিদের সার্বিক পরিস্থিতি বুঝতে সহায়তা করে। ‘সিঙ্গাপুরে আমরা প্রবাসী বাংলাদেশি’ নামের এ ফেসবুক পেজে এখন ৬০ হাজারের বেশি অনুসারী রয়েছেন। কয়েক মাস আগে সিঙ্গাপুরের দৈনিক ‘স্ট্রেটস টাইমস’ ওমর ফারুককে নিয়ে সংবাদও প্রচার করে।
পুরস্কার পেয়ে ওমর ফারুক জানান, এই পুরস্কার আমার জীবনের সবচেয়ে বড় একটা প্রাপ্তি।

default-image

একই সাথে পিপল অব গুড ক্যাটাগরিতে কবির হোসেন নামের একজন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সিঙ্গাপুরি নাগরিক পেয়েছেন বিশেষ পুরস্কার। কবির হোসেন করোনা মহামারিতে আটকে পড়া প্রবাসী শ্রমিকদের বিনা মূল্যে খাবার ও অন্য নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বিতরণ করেন। নিজ পরিবার নিয়ে রমজান মাসে কয়েক হাজার শ্রমিকের কাছে ব্যক্তিগতভাবে ইফতার ও খাবার সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন তিনি। তাঁর এই প্রশংসনীয় উদ্যোগ দ্রুতই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সিঙ্গাপুরের সফল এই তরুণ উদ্যোক্তা ব্রোকলিনজ স্টেইনলেস স্টিল প্রাইভেট লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এ ছাড়া কবির হোসেন নিজ উদ্যোগে BCS. SG. WAY নামক একটি অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করেছেন, যার মাধ্যমে খুব সহজেই প্রবাসী শ্রমিকেরা পাসপোর্ট নবায়নের আবেদন করতে পারবেন। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য কিনতে পারবেন ও ফ্রি ডেলিভারি সুবিধা পাবেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

কবির হোসেন জানান, এ ধরনের পদক পাওয়ায় একজন বাঙালি হিসেবে নিজেকে অনেক সম্মানিত এবং গর্বিত মনে করছি।
সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ভলান্টিয়ারিজম অ্যান্ড ফিল্যানন্ট্রোফি সেন্টার (এনভিপিসি) গত বছর থেকে Towards a City Of Good বা একটি ভালো শহর গড়ার প্রতিপাদ্যে কাজ করে যাচ্ছে। এ বছর তিনটি ক্যাটাগরি People of Good, Organisations of Good ও Leaders of Good–এ ব্যক্তি ও সংগঠন মিলিয়ে মোট ৩১টি রাষ্ট্রীয় পদক প্রদান করা হয়।
পিপল অব গুড ক্যাটাগরিতে ওমর ফারুক ছাড়া আরও চারজন সিঙ্গাপুরের নাগরিক এ পুরস্কার পান। অন্য তিনজনের সঙ্গে পিপল অব গুডের বিশেষ পুরস্কার পান কবির হোসেন।
২০১৮ সাল থেকে প্রতিবছর স্থানীয় নাগরিকদের তাঁদের স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজে উৎসাহিত করতে সিঙ্গাপুর সরকার এই পুরস্কার প্রদান করেন। এ বছরই প্রথম দুজন বাঙালি এই পুরস্কার পেলেন।

মন্তব্য পড়ুন 0