বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দেশটির বর্তমান সরকারি দল লিবারেল পার্টি ও প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টি—এ দুই দল থেকেও মনোনয়ন পেয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। এ ছাড়া নতুন দল করেও কেউ কেউ নির্বাচন করছেন; আবার কেউ কেউ করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবেও। পুরুষদের পাশাপাশি বাংলাদেশি নারীরাও অংশ নিয়েছেন এবারের কাউন্সিল নির্বাচনে। ইতিমধ্যে নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন বাংলাদেশি এসব প্রতিদ্বন্দ্বী। এবার প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে ৩০ জনেরও বেশি কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হয়েছেন।

বাংলাদেশি কাউন্সিলর পদপ্রার্থীরা হলেন লুৎফুল কবির (ক্যান্টাবেরি-ব্যাংকসটাউন), সুমন সাহা (ক্যাম্বারল্যান্ড), সাবরিন ফারুকি (ক্যাম্বারল্যান্ড), ফাহমিনা হক (ক্যান্টাবেরি-ব্যাংকসটাউন), সাজেদা আক্তার (ক্যান্টাবেরি-ব্যাংকসটাউন), আবুল হোসাইন সরকার (ক্যাম্বেলটাউন), মাসুদ রানা চৌধুরী (ক্যাম্বেলটাউন), আফজাল আহমেদ চৌধুরী (ক্যাম্বেলটাউন), শিবলি চৌধুরী (ডাব্বু), এন এম মাসুম (ক্যান্টাবেরি-ব্যাংকসটাউন), আবু সুফিয়ান (ক্যান্টাবেরি-ব্যাংকসটাউন), ফাইজুন নাহার (ক্যান্টাবেরি-ব্যাংকসটাউন), মাহবুবুর রহমান (ক্যান্টাবেরি-ব্যাংকসটাউন), মোহাম্মদ ইব্রাহীম খলিল (ক্যাম্বেলটাউন) প্রমুখ।

আগামী ৪ ডিসেম্বর রাজ্যজুড়ে ১২৪টি কাউন্সিলে কাউন্সিলর নির্বাচন হবে। এর মধ্যে ৩৫টি কাউন্সিলে মেয়র নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ৩ নভেম্বর কাউন্সিলর পদপ্রার্থীদের প্রার্থিতা প্রদান করেছে রাজ্যের নির্বাচন কমিশন। রাজ্যটিতে প্রায় ৫২ লাখ ভোটার রয়েছে। দেশটিতে সব ভোটারের ভোট দেওয়া বাধ্যতামূলক, অন্যথায় জরিমানা গুনতে হয়।

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন