default-image

বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনের পথ বেয়ে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে অর্জিত হয়েছে স্বাধীন বাংলাদেশ। ১৯৯৯ সালে ইউনেসকোর মহান শহীদ দিবসকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতির মাধ্যমে একুশ আজ দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিশ্বজনীন। এভাবেই শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের গুরুত্ব তুলে ধরেন জেনেভায় নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মো. মোস্তাফিজুর রহমান। দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন আয়োজিত ভার্চ্যুয়াল অনুষ্ঠানের আলোচনা পর্বের সভাপতির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, ইউনেসকোর এই স্বীকৃতি বিশ্বের সব ভাষা সংরক্ষণের একটি তাগিদ তৈরি করেছে। তাই বিলুপ্তপ্রায় ভাষাসহ সব ভাষা সংরক্ষণে বিশ্ব জনমত গড়ে তোলার জন্য আহ্বান জানান তিনি।

আলোচনা পর্বে সুইজারল্যান্ডপ্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন। তাঁরা মহান ভাষা আন্দোলনে শহীদদের আত্মত্যাগের কথা স্মরণ করার পাশাপাশি বাঙালি জাতীয়তাবাদের উন্মেষে ভাষা আন্দোলনের ব্যাপক প্রভাবের কথাও তুলে ধরেন। আলোচনা পর্বের পাশাপাশি স্থায়ী মিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সব শ্রেণি-পেশার প্রবাসীদের অংশগ্রহণে এ ভার্চ্যুয়াল অনুষ্ঠানের অন্যান্য আয়োজনের মধ্যে ছিল শহীদদের স্মরণে এক মিনিট  নীরবতা পালন, বাণী পাঠ, প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন, সংক্ষিপ্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বিশেষ প্রার্থনা।

বিজ্ঞাপন
দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন