default-image

কোভিড-১৯-এর ভারতীয় ভেরিয়েন্টের প্রথম নমুনা সুইজারল্যান্ডে পাওয়া গেছে বলে সুইস ফেডারেল অফিস অব পাবলিক জানিয়েছে। ভারতীয় ভেরিয়েন্ট–বাহক এমন একজন যাত্রী, যিনি বিমানবন্দরে ট্রানজিটে ছিলেন।

গত শনিবার অফিসটি জানিয়েছে, ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর তালিকায় ভারত যুক্ত হওয়ার বিষয়টি এখন বিবেচনা করছে। বর্তমানে কেবল সুইস নাগরিক বা আবাসনের অনুমতিপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের ভারত থেকে সুইজারল্যান্ডে প্রবেশের অনুমতি রয়েছে।

স্বাস্থ্য দপ্তর জানিয়েছে, মার্চের শেষের দিক থেকে ভারতীয় করোনাভাইরাসের রূপান্তর নিয়ে নমুনা প্রকাশিত হয়েছে। ট্রানজিট যাত্রী হিসেবে ওই বাহক যাত্রী একটি ইউরোপীয় দেশ থেকে সুইজারল্যান্ডে প্রবেশ করেছিলেন।

ইতিমধ্যে যুক্তরাজ্য ও বেলজিয়ামে ভারতীয় রূপটি শনাক্ত হয়েছে। বেলজিয়ামে, প্যারিসের চার্লস ডি গল বিমানবন্দর হয়ে এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে আগত ২১ জন ভারতীয় শিক্ষার্থীর শরীরে ভারতীয় করোনাভাইরাস ভেরিয়েন্ট পজিটিভ ধরা পড়ে এবং তাঁদের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, তাঁরা প্যারিস অঞ্চল থেকে বেলজিয়ামের যাত্রা চলাকালীন সম্ভবত তাঁদের গ্রুপের মধ্যেই ‘সুপার স্প্রেডার’–এর শিকার হয়েছেন।

গত শুক্রবার ভারতে বিশ্বের মধ্যে সর্বোচ্চ দৈনিক করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে। ওই দিন ৩ লাখ ৩০ হাজার নতুন করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। রাজধানী নয়াদিল্লিসহ উত্তর ও পশ্চিম ভারতজুড়ে বেশির ভাগ হাসপাতাল অক্সিজেনের সংকটে ভুগছে।

ব্রিটেন, কানাডা, সিঙ্গাপুর ও সংযুক্ত আরব আমিরাত ভারত থেকে বিমান নিষিদ্ধ করেছে।

যদিও সুইজারল্যান্ড তার কোভিড-১৯ বিধিনিষেধ আরও শিথিল করেছে। তবু সরকার চায় কমপক্ষে মে মাসের শেষ অবধি লোকেরা বাড়ি থেকে কাজ চালিয়ে যাক। সুইস সরকার জানিয়েছে, ২৬ মের আগে মহামারি ব্যবস্থায় অতিরিক্ত শিথিলকরণের সম্ভাবনা কম। রেস্তোরাঁ ও বারগুলো তাদের বহিরাঙ্গন আসনের অঞ্চলগুলো আবার খোলার অনুমতি দেওয়ার দুদিন পর এ ঘোষণা আসে।

বিজ্ঞাপন
দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন