default-image

ভারী তুষারপাত আর তুষারঝড়ে কাবু স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদসহ পুরো স্পেন। বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে শুরু হওয়া অঝোরধারার তুষারপাতে ঢাকা পড়েছে বিস্তীর্ণ এলাকা। দেশটির রাজধানী মাদ্রিদসহ কয়েকটি রাজ্যে জারি করা হয় জরুরি অবস্থা।

নাগরিকদের নিরাপত্তার জন্য বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া ঘরে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় সময় রোববার মধ্যরাতের পর তুষারপাতের পরিমাণ আরও বাড়ার কথা। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, এবারের তুষারপাত নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করবে। কোনো কোনো জায়গায় তিন ফুটের বেশি বরফের স্তূপ জমবে বলে সতর্ক করে দেওয়া হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
default-image

বরফে ঢাকা পড়েছে স্পেনের বিভিন্ন অঞ্চল। তীব্র তুষারপাতে বন্ধ হয়ে গেছে যান চলাচল। রাস্তায় গাড়ি আটকে সৃষ্টি হয়েছে যানজটের। কোথাও কোথাও গাড়ি ঠেলে নিতে বাধ্য হন যাত্রীরা। সড়কের পাশাপাশি রেলযোগাযোগও ব্যাহত হয়। বিপাকে পড়েন সাধারণ মানুষ। আগামী কয়েক দিনে পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে সতর্ক করেছে আবহাওয়া বিভাগ। এখন পর্যন্ত মাদ্রিদ, মালাগা ও কাতালোনিয়ার চাররাগোছাতে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। তীব্র ঠান্ডা ও শৈত্যপ্রবাহের জন্য জরুরি সতর্কতা ঘোষণা করা হয়েছে দেশটিতে। গত শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) থেকে মাদ্রিদ, কাসটেইয়া লা মানসা ও ভ্যালেন্সিয়াতে সর্বোচ্চ সতর্কতা রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।

ইতিমধ্যেই ইউরোপের এই আইবেরিয়ান পেনিনসুলা অঞ্চলে থার্মোমিটার তার ঐতিহাসিক রেকর্ড ভেঙে হিমাঙ্কের নিচে -৩৪.১ ডিগ্রিতে নেমে গেছে। কাতালান পর্বতমালার (পিরিনেউ) পাদদেশের ক্লট ডে লা ইয়ান্সাতে ৬ জানুয়ারি এই সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। এর আগে ১৯৫৬ সালের ২ ফেব্রুয়ারিতে স্পেনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল লেলিদায় হিমাঙ্কের নিচে -৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

স্পেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঠান্ডা ও তুষারপাতে আক্রান্ত শহরগুলোর বাসিন্দাদের এই বৈরী আবহাওয়া মোকাবিলা করার জন্য বাসায় থাকার পরামর্শ দিয়েছে। তুষারপাত, ঝোড়ো বাতাস, ঠান্ডা ও বৃষ্টির জন্য এখন পর্যন্ত দেশটির ৪৫টি প্রদেশকে বিপজ্জনক হিসেবে চিহ্নিত করেছে সরকার। এর মধ্যে ১০ প্রদেশকে সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ বলে ঘোষণা করেছে।

default-image

রাজধানী মাদ্রিদে তুষারপাতের ফলে ইতিমধ্যে ৬০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত তুষারপাত হয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, রাজধানীতে আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে -১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস নামবে।

মাদ্রিদ ও কাসটেইয়া লা মানসা আজ সোমবার ও আগামীকাল মঙ্গলবার (১১ ও ১২ জানুয়ারি) স্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে বন্ধ ঘোষণা করেছে।

দেশটির প্রায় ৬৫২টি মহাসড়ক তীব্র তুষারের কারণে যানবাহন চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। অনেক মহাসড়ক বন্ধ হয়ে গেছে। এর মধ্যে দেশটির ট্রাফিক বিভাগ ২০০টি মহাসড়কে গাড়ি চালানোর সময় চাকায় শিকল ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছে, যাতে তুষারে পিছলে দুর্ঘটনা না ঘটে।

বিজ্ঞাপন
default-image

প্রচণ্ড তুষারপাতের কারণে সোমবার দুপুর থেকেই জনজীবন কার্যত অচল হয়ে পড়ে। সর্বদা উৎসবের নগর হিসেবে পরিচিত মাদ্রিদ পরিণত হয়েছে ভুতুড়ে জনপদে।

রাস্তাঘাট বরফে ঢেকে যাওয়ায় পরিষ্কারে ব্যস্ত সময় পার করেন বেসামরিক সেবাকর্মীরা। তবে কোথাও কোথাও অনেককে পরিবার-পরিজন নিয়ে বড়দিন–পরবর্তী হোয়াইট ক্রিসমাসে মেতে উঠতে দেখা যায়। বরফের মধ্যে স্কি করে আনন্দ করেন তাঁরা। তাঁরা জানান, শিশুরা খুব আনন্দিত। তাঁরা সবাই এই মৌসুমের তুষারপাত খুব উপভোগ করছেন। তীব্র তুষারপাতের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেছেন প্রবাসী আবদুর রহমান। তিনি জানান, রাজধানী মাদ্রিদসহ পুরো স্পেন জনশূন্য। মাদ্রিদের এমন জনমানবহীন চেহারা কখনো দেখেননি। একাধিক প্রবাসী জানিয়েছেন, তীব্র তুষারপাতের জন্য ব্যবসা-বাণিজ্যসহ তাঁদের আয়রোজগার বন্ধ।

হিমশীতল দমকা বাতাসে বিভিন্ন স্থানে গাছ উপড়ে পড়ার ঘটনা ঘটেছে। তবে করোনার কারণে বিভিন্ন বিধিনিষেধ থাকায় মানুষের সংখ্যা বাইরে কম বলে সড়কের ট্রাফিক অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে ছিল।

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন