default-image

বাংলাদেশের ৫০তম স্বাধীনতা দিবস উদ্‌যাপনের জন্য আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল। ব্রিটিশ ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশের লেখক, সাংবাদিক ফোরাম ইউকে এবং বাংলা টিভি চ্যানেল এনএল-২৪-এর সহযোগিতায় এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সম্ভবত, এই প্রথমবারের মতো কোনো আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়, যেখানে উত্তর আমেরিকার কানাডা থেকে ইউরোপের জার্মানি পর্যন্ত এবং বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যেরও অসংখ্য বক্তা অংশ নিয়েছিলেন।

সম্মেলনের প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশের তথ্য প্রতিমন্ত্রী ড. মুরাদ হাসান। উদ্বোধনী ভাষণে তিনি বাংলাদেশের জনগণের ওপর দখলকারী পাকিস্তানি বাহিনীর নৃশংসতা এবং বর্বরতা নিয়ে আলোচনা করেন। এ ছাড়া তিনি বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে দোষী ব্যক্তিদের বিচারের আওতায় আনার আবেদন জানান। এই প্যানেলের অন্য সদস্যদের মধ্যে ছিলেন বিশিষ্ট কানাডিয়ান সাংবাদিক এবং পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত মানবাধিকারকর্মী তাহির আসলাম ঘোরা, যিনি ১৯৭১ সালে পশ্চিম পাকিস্তানি সামরিক প্রতিষ্ঠানের দ্বারা পরিচালিত নৃশংস বর্বর গণহত্যার ব্যাপারে আলোচনা করেন।

যুক্তরাজ্যের হাউস অব লর্ডের প্রতিনিধি ব্যারন র‍্যামি রেঞ্জার ঐতিহ্য এবং অংশীদারত্বের ইতিহাসকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যকার পারস্পরিক সহকারিতা ও সহযোগিতার ওপর বক্তব্য দেন।

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাজ্য ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নীতিনির্ধারণী সংস্থা হেনরি জ্যাকসন সোসাইটির সিনিয়র একাডেমিক ড. পল স্টট উল্লেখ করেন, বাংলাদেশের ৫০তম স্বাধীনতা দিবস এবং একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য কতটা সচেতনতা প্রয়োজন, বিশেষ করে পশ্চিমা বিশ্বে।

বার্লিনের ভায়াদরিনা ইউরোপা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নায়ুযুদ্ধের সংস্কৃতি ও রাজনীতির বিশিষ্ট অধ্যাপক ও বিশেষজ্ঞ ড. গৌতম চক্রবর্তী আমেরিকার যুক্তরাষ্ট্রের আর্চার ব্লাডের মতো কূটনীতিকদের ভূমিকার পাশাপাশি ১৯৭১ সালের স্নায়ুযুদ্ধের বিভিন্ন দিকের কথা উল্লেখ করেন।

বাংলাদেশের লেখকসমাজ এবং ইউকে সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আনসার উল্লাহ ধন্যবাদ জানান এবং এ-জাতীয় উল্লেখযোগ্য অনুষ্ঠানের জন্য হোস্টসহ সব আয়োজককে অভিনন্দন জানান।

ওয়েব সেমিনার পরিচালনা করেছিলেন প্রখ্যাত লেখক প্রিয়জিৎ দেব সরকার, যিনি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের বই এবং গবেষণামূলক প্রবন্ধ উভয় বিষয়েই লিখেছেন। তিনি বাংলাদেশ, ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে সৌহার্দ্য ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। বিজ্ঞপ্তি

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন