২০২১ সালের ১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মদিন। মুজিব বর্ষ উপলক্ষে টরন্টোপ্রবাসী বাংলাদেশিরা আয়োজন করেছেন স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি। কানাডিয়ান ব্লাড সার্ভিসেসের সহযোগিতায় ১৭, ১৯ ও ২১ মার্চ তিন দিন শতাধিক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান নাগরিক রক্তদান করবেন বলে নিবন্ধন সম্পন্ন করেছেন।

এর আয়োজকেরা বলছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি নিখাদ ভালোবাসার নিদর্শন হিসেবে এমন আয়োজন করেছেন টরন্টোপ্রবাসী বাংলাদেশিরা। উদ্যোগটির আয়োজন সহযোগী হিসেবে রয়েছে কানাডিয়ান ব্লাড সার্ভিসেস, প্রজেক্ট লন্ডন ১৯৭১, মুক্তিযুদ্ধ ই–আর্কাইভ ও ক্যানাটা ফাউন্ডেশন।

মুজিবজন্মশতবর্ষে টরন্টোতে স্বেচ্ছায় রক্তদানের এই কর্মসূচির উদ্যোক্তা ও সমন্বয়নকারী ড. সুশীতল চৌধুরী। আয়োজন সম্পর্কে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু আজীবন সংগ্রাম করেছেন জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও দেশের মানুষের স্বাধীনতার জন্য। ৭ মার্চে দেওয়া তাঁর ঐতিহাসিক ভাষণটি পেয়েছে বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি। বিবিসি জরিপে জনপ্রিয় ভোটে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন বঙ্গবন্ধু। তাঁর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে দেশে বিদেশে নানা বর্ণিল আয়োজনের উপলক্ষ তৈরি হওয়াটাই স্বাভাবিক। টরন্টোপ্রবাসী বাংলাদেশিরা জাতির জনকের প্রতি ভালোবাসা, শ্রদ্ধা জানাতে নিয়েছেন স্বেচ্ছায় রক্তদানের মতো উদ্যোগ। যাঁরা বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসেন, তাঁর জন্মশতবার্ষিকীতে এই উদ্যোগে শরিক হবেন। ইতিমধ্যে শতাধিক বাংলাদেশি কানাডিয়ান রক্তদান করবেন বলে নিবন্ধন সম্পন্ন করেছেন।

১৭, ১৯ ও ২১ মার্চ তিন দিন কানাডিয়ান ব্লাড সার্ভিসেসের ব্লুর ইয়াং ২ ব্লুর স্ট্রিট ইস্ট সেন্টারে সকাল ৯টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত রক্তদান করা যাবে। ১৭ মার্চ সকাল ৯টায় এ আয়োজনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে বলে জানিয়েছেন আয়োজকেরা।

default-image

জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে স্বেচ্ছায় রক্তদানের মতো কর্মসূচি একটি বলিষ্ঠ, সময়োপযোগী উদ্যোগ বলে অভিহিত করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, টরন্টো সিটি মেয়র জন টরি, ওন্টারিও প্রিমিয়ার ডগ ফোর্ড, কানাডার জননিরাপত্তা বিষয়কমন্ত্রী বিল ব্লেয়ার, বাংলাদেশ কনসাল জেনারেল টরন্টো নাঈম উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এমপিপি ডলি বেগম, কাউন্সিলর গ্যারি ক্রফোর্ড প্রমুখ।

মুজিব বর্ষে টরন্টোপ্রবাসী বাংলাদেশিদের এই স্বেচ্ছা রক্তদান কর্মসূচিকে অনন্য উদ্যোগ হিসেবে আখ্যায়িত করে নাঈম উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আয়োজকদের কৃতজ্ঞতা জানাই। জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে স্বেচ্ছায় রক্তদানের চেয়ে মহৎ কর্মসূচি আর কী হতে পারে। আয়োজনের সফলতা কামনা করছি।’

default-image

রক্তদান কর্মসূচির সহযোগী প্রতিষ্ঠান কানাডিয়ান ব্লাড সার্ভিসেসের কমিউনিটি রিলেশনশিপ ম্যানেজার ক্রিস্টি আপটন বলেন, ‘কানাডায় বসবাসরত বাংলাদেশি কমিউনিটির সকল নাগরিককে কৃতজ্ঞতা জানাই বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির মতো উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য। কানাডিয়ান ব্লাড সার্ভিসেস গর্বিত সহযোগী হিসেবে এই উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে পেরে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0