default-image

আন্তর্জাতিক বিজনেস আইডিয়া প্রতিযোগিতা এবং শিক্ষার্থীদের নোবেল পুরস্কারখ্যাত হাল্ট প্রাইজ ইমপ্যাক্ট সামিট-২০২১ শেনজেন সফলভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ থেকে দুটি টিম হাল্ট প্রাইজ রিজিওনাল ইমপ্যাক্ট সামিটে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পায়।

২১ থেকে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত তিন দিনব্যাপী এই সামিট অফলাইন এবং অনলাইন ওয়েবিনারের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়। হাল্ট প্রাইজ ইমপ্যাক্ট সামিটটি চাইনিজ ইউনিভার্সিটি অব হংকংয়ের (শেনজেন) উদ্যোগে আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান বাস্তবায়নে হাল্ট প্রাইজ ফাউন্ডেশন এবং সেন্টার ফর ইনোভেশন, ডিজাইন অ্যান্ড এন্ট্রাপ্রেনিউরশিপ (সিআইডিই) যৌথভাবে সহযোগিতা করে।

বিশ্বের বৃহত্তম ছাত্রছাত্রীদের প্রতিযোগিতার প্ল্যাটফর্ম হিসেবে এ শীর্ষ সম্মেলনে বিশ্বের ১৬টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২৭টি দল অংশ নিয়েছিল। অংশগ্রহণকারী দলগুলো ‘ফুড ফর গুড, এন্ট্রাপ্রেনিউরশিপ প্ল্যান ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট অব ফুড সিস্টেম’—এ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে সৃজনশীলতার মুখোমুখি হয়েছিল।

আঞ্চলিক শীর্ষ সম্মেলনের প্রতিযোগিতার অংশটি প্রাথমিক এবং চূড়ান্ত দুটি ভাগে ভাগ ছিল। ফাইনাল পর্বে প্রবেশের জন্য ১২ জন বিচারক ২৭টি প্রাথমিক প্রতিযোগী দলের মধ্যে থেকে ৬টি দলকে নির্বাচন করেছিলেন। চূড়ান্ত পর্বে ৬টি দল প্রতিযোগিতা অংশগ্রহণ করে এবং তাদের প্রতিভা দেখিয়েছিল।

চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণকারী দল গুলো হলো বাংলাদেশের বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় থেকে টাছু টিম, চাইনিজ ইউনিভার্সিটি অব হংকংয়ের (শেনজেন) রেকপি টিম, সিংহুয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোকো ফ্রুট দল, চায়নিজ ইউনিভার্সিটি অব হংকংয়ের (শেনজেন) আর্মাডা টিম, শি’আন চিয়াওথং-লিভারপুল ইউনিভার্সিটির গ্রিন সাভিওর টিম, ইউনিভার্সিটি অব ইন্টারন্যাশনাল বিসনেস অ্যান্ড ইকোনমিকসের আইকিগাই টিম।

default-image

প্রতিযোগিতার বিচারকেরা চাইনিজ ইউনিভার্সিটি অব হংকংয়ের (শেনজেন) রেকপি টিমকে বিজয়ী ঘোষণা করে। বিজয়ী দল রেকপি ৩৪ হাজার চাইনিজ মুদ্রা (ইউয়ান) অনুদান পায় তাদের প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য। তা ছাড়া অংশগ্রহণকারী ৬টি দলকে শেনজেনে একটি অফিস প্রদান করা হবে, যা চায়নিজ ইউনিভার্সিটি অব হংকংয়ের (শেনজেন) সেন্টার ফর ইনোভেশন, ডিজাইন অ্যান্ড এন্ট্রাপ্রেনিউরশিপ (সিআইডিই) থেকে সরবরাহ করা হবে। যাতে কার্যকর ব্যবসায়ের সঙ্গে তাদের নিজস্ব সামাজিক উদ্ভাবনী পরিকল্পনা বাস্তবায়নে দ্বার অব্যাহত রাখতে উৎসাহ পায়।

বিজ্ঞাপন

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট গু ইয়াং হাল্ট প্রাইজ রিজিওনাল ইমপ্যাক্ট সম্মেলনে চাইনিজ ইউনিভার্সিটি অব হংকংয়ের (শেনজেন) পক্ষ থেকে বক্তব্য দেন। তিনি ইভেন্টের সমস্ত আয়োজক, পরামর্শদাতা, বিচারক এবং দাতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। উদ্যোক্তা ও উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে অবদান রাখতে এবং নতুন প্রজন্মকে উদ্ভাবনী প্রতিভা সমর্থনে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, তা ব্যক্ত করেন। তিনি আরও উল্লেখ করেন, এই শীর্ষ সম্মেলন বিশ্বের সঙ্গে ধারণা বিনিময় এবং অনুপ্রেরণা জাগ্রত করার একটি ভালো সুযোগ।

হাল্ট প্রাইজ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আহমদ আশকর আয়োজকদের পক্ষ থেকে সমস্ত উদ্যোক্তা দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তাদের কঠোর পরিশ্রমের জন্য। তিনি বলেন, ‘আমরা কাজ করি সামাজিক সমস্যা সমাধানের জন্য। পাশাপাশি শক্তিশালী এবং দীর্ঘস্থায়ী সংযোগ স্থাপনের ধারণার মাধ্যমে সবার জন্য আরও ভালো বিশ্ব তৈরি করার জন্য।’

স্কুল অব ইকোনমিকস অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টের সিনিয়র অ্যাসোসিয়েট ডিন অধ্যাপক মাইকেল ফার্গুসন, হাল্ট প্রাইজ ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা বেলেন মেরিন এবং হাল্ট প্রাইজ চীনের কর্মকর্তা শ্যারন ফু স্বাগত বক্তব্য দেন এবং বিশ্বজুড়ে উদ্ভাবনী দলগুলোকে আন্তরিকভাবে স্বাগত জানিয়ে সকলকে ধন্যবাদ জানান।

প্রতিশ্রুতিবদ্ধ গুরুতর সামাজিক সমস্যা সমাধানের জন্য সতর্ক ও উন্মুক্ত চিন্তাভাবনাসহ শীর্ষস্থানীয় উন্নত ব্যবসায়িক মডেল প্রতিযোগিতাটি টেনসেন্টের সরাসরি সম্প্রচার প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে একযোগে বিশ্বব্যাপী সম্প্রচারিত হয়েছিল এবং একসঙ্গে ৫ লাখ ৩০ হাজারেরও বেশি দর্শক অনলাইনে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন