বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এখন এন্ডোমেট্রিওসিসের রোগীর সংখ্যা অনেকটা বেড়ে গেছে। এর অনেক কারণ আছে। ডা. নাজনীন আহমেদ বললেন, এর ফলে পিরিয়ডের সময় পেটে ব্যথা হয়, ব্লিডিংও বেশি হতে পারে। ওষুধে ব্যথা কমে। এমন সমস্যাও পুরোপুরি সমাধান করা যায়। চিকিৎসা হিসেবে কপার টির মতো করে হরমোনও দেওয়া হয়। এগুলো সবই বাংলাদেশে পাওয়া যায়। ডা. মেহেরুন নেসা জানান, কিশোরী (১৩ থেকে ১৮ বছর) মেয়েরাও এন্ডোমেট্রিওসিসে ভোগে। পিরিয়ড শুরু হওয়ার আগেও এই ব্যথা শুরু হতে পারে। এ সময় কাউন্সেলিংটাই সবচেয়ে বড় সাপোর্ট।

default-image

মেয়েদের মাসিকের সময় ওভারি থেকে ইস্ট্রোজেন ও প্রজেস্টেরন নামে দুটি হরমোন নিঃসৃত হয়। এগুলো মাসিকের পর্দার ওপরে কাজ করে। ঠিক এই হরমোনগুলোই এন্ডোমেট্রিওসিসের স্পটের ওপরে কাজ করে। এক্ষেত্রে ওরাল পিলে যে ইস্ট্রোজেন ও প্রজেস্টেরন আসে সেটিই এন্ডোমেট্রিওসিসের স্পটের ওপরে কাজ করে। ফলে ওভারি থেকে যে হরমোন নিঃসৃত হয়, সেটি মাসিকের পর্দার ওপরেই ঠিকমতো কাজ করে। তাই অবিবাহিত কিশোরীকে ওরাল পিল দিলে ভয়ের কিছু নেই। আর বিয়ের পর যদি বাচ্চা নিতে না চান, সেক্ষত্রেও ওরাল পিল ভালো কাজ করবে। একই সঙ্গে দুটি কাজ করবে।

সুস্থতা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন