বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আবার বাসে বা গাড়িতে যাওয়ার সময় কড়া ব্রেক করা হলে যাত্রী হাত দিয়ে শক্ত করে গাড়ির হাতল ধরে সুরক্ষার চেষ্টা করেন। এ সময় এতে অনেকে ব্যথা পান, যা পরে কাঁধব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এ ছাড়া বয়স চল্লিশের ওপর হলে ডিজেনারেটিভ বা ক্ষয়জনিত সমস্যা শুরু হয়। জয়েন্টের অভ্যন্তরীণ সাইনোভিয়াল ফ্লুইড কমে যেতে থাকে। এ কারণে কাঁধে ব্যথা হতে পারে। এ রোগটিও ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের বেশি হয়ে থাকে।

খুব ব্যথা থাকলে চিকিৎসক ব্যথা কমাতে ব্যথানাশক ওষুধ দিতে পারেন, তবে তা পরামর্শ নিয়েই সেবন করা উচিত। মাংসপেশি শিথিল করতে ওষুধের প্রয়োজন হতে পারে। রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। পাশাপাশি প্রয়োজন সঠিক ও সময়োপযোগী ফিজিওথেরাপি। শেখানো ব্যায়াম নিজে বাড়িতে প্রতিদিন করলে ভালো ফল পাওয়া যাবে। ধৈর্য ধরে ব্যায়াম করতে হবে। পুরোপুরি সারতে ছয় মাস, এমনকি এক বছরও লেগে যেতে পারে। এ ছাড়া এ রোগের চিকিৎসায় কিছু ইলেকট্রোথেরাপিউটিক এজেন্ট উপকারী।

আগামীকাল পড়ুন: যেসব সমস্যা থেকে পায়ুপথের ক্যানসার হতে পারে

এম ইয়াছিন আলী, ফিজিওথেরাপিস্ট, ঢাকা সিটি ফিজিওথেরাপি হাসপাতাল, ধানমন্ডি, ঢাকা

সুস্থতা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন