বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

করণীয়

যাদের দাঁতের ফাঁকে খাবার ঢোকার প্রবণতা আছে, তাদের সাধারণ পদ্ধতিতে টুথব্রাশ করলে সেই খাবার বের হবে না। অনেকে আবার খাবার বের করতে বেশি জোরে ব্রাশ করে দাঁতের প্রতিরক্ষা অ্যানামেল নষ্ট করে। বেশির ভাগ মানুষ প্রচলিত কাঠের টুথপিক, ধাতব কাঠি অনেকে আবার সেফটিপিন, ওষুধের স্ট্রিপ বা হাতের কাছে যা পান তা দিয়ে খোঁচাখুঁচি করেন। এ থেকে মাড়ির মধ্যে প্রদাহ তৈরি হয়, ফাঁকা বড় হতে থাকে, দাঁতের ধারক কলা নষ্ট হয়। দাঁতের ফাঁকের খাবার নিরাপদে বের করার মাধ্যম হচ্ছে ডেন্টাল ফ্লস বা ইন্টার ডেন্টাল ব্রাশ।

অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস রোগী, ইনহেলার ব্যবহারকারী, কিডনি, লিভার বা হার্টের রোগী, শরীরে রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কম এমন ব্যক্তিদের চিকিৎসকের পরামর্শে মাউথ ওয়াশ বা কুসুম গরম পানিতে লবণ মিশিয়ে কুলকুচি করতে হবে।

ফাঁকা বড় হয়ে গেলে ফিলিং চিকিৎসাপদ্ধতিতে এটা স্বাভাবিক করা যেতে পারে। এ ফিলিংকে ক্লাস টু ফিলিং বলা হয়। সাধারণ ফিলিংয়ের চেয়ে একটু সংবেদনশীল। ভালো চিকিৎসা উপাদান বা অভিজ্ঞ চিকিৎসক না হলে ফিলিংটি নষ্ট হতে পারে সহজেই। একাধিক দাঁত এলোমেলো থাকলে অর্থডোন্টিক চিকিৎসার প্রয়োজন পড়তে পারে, যাতে করে দাঁত সুন্দর ও সুসজ্জিত হয়। ক্যাপের স্থানে এমনটা হলে ক্যাপ পরিবর্তনের প্রয়োজন পড়ে।

সুস্থতা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন