default-image

প্রকৃতিতে এসেছে ঋতুরাজ বসন্ত। কিন্তু এই সময়ে দেখা দিতে পারে নানা স্বাস্থ্য সমস্যা। আর আবহাওয়ার আকস্মিক পরিবর্তনে শিশুরাই আক্রান্ত হয় সবচেয়ে বেশি। তাই জেনে নিন বসন্তকালে শিশুদের স্বাস্থ্য সমস্যা বিষয়ে।
শীত বলে যাই যাই
বসন্ত এল বলে হিমেল হাওয়া কিন্তু বিদায় নেয়নি। তাই গরম কাপড় পরা থেকে শিশুকে বিরত রাখবেন না। সন্ধ্যা হলে সন্তানকে একটু মোটা কাপড় পরান। শেষ রাতের ঠান্ডাটা শিশুদের জন্য বিপদ ডেকে আনতে পারে। ঋতু পরিবর্তনের এ সময়ে ভাইরাসজনিত জ্বরের প্রকোপ দেখা যায়। সাধারণত ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের মাধ্যমে এই রোগ হয়। এতে মাথাব্যথা, শরীর ও গিরায় ব্যথা, নাক দিয়ে পানি পড়া, কাশি, অরুচি, দুর্বলতা ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে। প্যারাসিটামল এবং প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে অ্যান্টি-হিস্টামিন ব্যবহার করলে কয়েক দিনের মধ্যে এমনিতেই ভালো হয়ে যায়। তবে দুই বছরের কম বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে মায়ের বুকের দুধ এবং ছয় মাসের বেশি বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে পুষ্টিকর খাবার ও প্রচুর পানি পান করাতে ভুলবেন না।
সময়টা জলবসন্তের
বসন্তকালে জলবসন্ত রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা যায়। এ রোগ খুব ছোঁয়াচে, বিশেষ করে যাদের কোনো দিন এ রোগ হয়নি—তাদের জন্য। সরাসরি সংস্পর্শে এবং রোগীর হাঁচি-কাশির মাধ্যমে জলবসন্ত ভাইরাস ছড়ায়। আক্রান্ত রোগীকে আলাদা রাখতে হবে ও চিকিৎসকের পরামর্শ মতো লক্ষণ অনুযায়ী চিকিৎসা করতে হবে।
ফুলে অ্যালার্জি
বসন্তে সবচেয়ে বেশি হয় পুষ্পরেণু অ্যালার্জি। এ সময় নানা রঙের ফুল ফোটে। বাতাসে উড়ে বেড়ায় এসব ফুলের রেণু। পুষ্পরেণু নাক ও শ্বাসযন্ত্রে ঢুকে চুলকানি, কাশি, হাঁচি, নাক দিয়ে পানি পড়া ইত্যাদি সমস্যা তৈরি করতে পারে। অ্যালার্জেনের সংস্পর্শে এসে শরীরে প্রতিক্রিয়া হয়। এ সময় হাঁপানিও বেড়ে যায় অনেকের। যেসব শিশুর অ্যালার্জি বা হাঁপানি আছে তাদের ফুলবাগান, পার্কে বেশি না যাওয়াই ভালো। প্রয়োজনে শিশুকে মাস্ক পরিয়ে দিন। সমস্যা বেশি হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।  শিশু বিভাগ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ|

বিজ্ঞাপন
স্বাস্থ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন