default-image

মেনোপজ বা নারীদের নির্দিষ্ট বয়সে মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়া একটি প্রাকৃতিক ও স্বাভাবিক শারীরিক প্রক্রিয়া, যা সাধারণত ৪৫ থেকে ৫৫ বছর বয়সে হয়ে থাকে। তবে অস্ত্রোপচারের কারণে যদি কারও দুটি ওভারি বা জরায়ু মেনোপজের বয়স হওয়ার আগেই ফেলে দেওয়া হয়, তাহলে অকালে মাসিক বন্ধ হয়ে যায়।

মেনোপজ হলে কী হতে পারে

সাধারণত একজন নারীর একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ ডিম্বাণু তাঁর জরায়ুতে সংরক্ষিত থাকে। জরায়ু তাঁর দেহে ইস্ট্রোজেন ও প্রজেস্টেরন হরমোন তৈরি করে, যা মাসিক ও ওভুলেশনকে (ডিম্বস্ফোটন) নিয়ন্ত্রণ করে। যখন জরায়ু থেকে ডিম্বাণুর নিঃসরণ ও মাসিক বন্ধ হয়ে যায়, তখনই মেনোপজ হয়। মেনোপজ হওয়ার পর হরমোনের আকস্মিক পতনের কারণে হট ফ্ল্যাশ, চুল পড়া, মুড সুইং, ওজন বৃদ্ধি, অনিদ্রা, শুষ্কতা, যৌন মিলনে অনিহা ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে।

মেনোপজের সময় ব্যায়াম জরুরি

মেনোপজের সময় নিয়মিত ব্যায়াম করা জরুরি, বিশেষত অ্যারোবিকস। নিয়মিত ব্যায়ামের ফলে অতিরিক্ত মেদ কমিয়ে আদর্শ ওজন বজায় রাখা সম্ভব। তা ছাড়া ‘স্ট্রেংথ ট্রেনিং (শক্তি বৃদ্ধির ব্যায়াম) এক্সারসাইজ’ মাসল লস (মাংসপেশি শুকিয়ে যাওয়া) ও অস্টিওপোরোসিস (হাড়ক্ষয়) প্রতিরোধ করে। ব্যায়ামের ফলে মাংশপেশি শক্তিশালী হয় ও মেটাবলিজম (বিপাক) বাড়ে। মেনোপজের পর নারীদের হৃদ্‌রোগ হওয়ার ও রক্তে চর্বি বাড়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি করে। বেড়ে যায় অস্টিওপোরোসিসের ঝুঁকিও। নিয়মিত ব্যায়ামের মাধ্যমে ফিটনেস বজায় রাখা সম্ভব।

সপ্তাহে ১৫০ মিনিট ব্যায়াম করতে হবে। প্রতিদিন ২০–২৫ মিনিট ব্যায়াম যথেষ্ট। যেমন হাঁটা, জগিং, সাইক্লিং, সাঁতার কাটা, ইনডোর সাইকেল বা ট্রেডমিল বা জুম্বাও হতে পারে ভালো ব্যায়াম।

বিজ্ঞাপন
কারও যদি শারীরিক সমস্যা হয়, তাহলে যেকোনো ব্যায়াম শুরুর আগে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে।

স্ট্রেংথ ট্রেনিং: স্কোয়াটিং (হাঁটু ভাঁজ করে ওঠা–বসা), বাইসেপস কার্ল, ওয়েট লিফটিং, সাইক্লিং ও ব্যালেন্সিং বা ভারসাম্য নিয়ন্ত্রণ ব্যায়াম। যেমন এক পায়ে দাঁড়ানো, উঁচু–নিচু জায়গায় দৌড়ানো।

ইয়োগা: ইয়োগা ও স্ট্রেচিং দারুণ কার্যকর ব্যায়াম। যাঁরা নতুন শুরু করবেন, তাঁরা শুরুতে ১০ মিনিট করতে পারেন। ধীরে ধীরে সময় ও রিপিটেশন বাড়াতে হবে।

ওয়াটার অ্যারোবিকস: পানির মধ্যে ব্যায়াম খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, পানি একধরনের প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে, যা মাংসপেশির সহনশীলতা ও ভারসাম্য রক্ষা করে। তাই সাঁতার কাটা, হাঁটা, সাইকেল করা, উল্টো সাঁতার কাটতে পারেন ২০–৩০ মিনিট।

কারও যদি শারীরিক সমস্যা হয়, তাহলে যেকোনো ব্যায়াম শুরুর আগে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0