বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মজার তথ্য

লেবু নিয়ে রয়েছে নানা মজার তথ্য। এই যেমন চতুর্দশ লুইয়ের জমানায় ফরাসি রমণীরা তাদের অধর রাঙাতেন লেবু দিয়ে। আবার স্কার্ভি থেকে রেহাই পেতে ব্রিটিশ নাবিকেরা জাহাজ ভরে লেবু নিয়ে রওনা দিতে বাণিজ্যে কিংবা যুদ্ধে।

default-image

পুষ্টিগুণ

লেবুর পুষ্টিগুণ বলে শেষ করা যাবে না। চায়ের কাপের এক-চতুর্থাংশ লেবুর রসে আছে ৩১ শতাংশ ভিটামিন সি; যা কিনা দৈনিক চাহিদার সমান। এ ছাড়া আরও আছে ৩ শতাংশ ফোলেট আর ২ শতাংশ পটাশিয়াম।। সব মিলিয়ে ১৩ ক্যালরি।

কার্যকারিতা

এর রয়েছে নানা কার্যকর ভূমিকা। সতেজ রাখে, ওজন কমায়, ত্বক সুন্দর রাখে, হজমে সহায়তা করে, নিশ্বাসের দুর্গন্ধ দূর করে, কিডনির পাথর হওয়া রোধ করে, রক্ত পরিশুদ্ধ করে, ক্যানসার প্রতিরোধ করে। আর এই ফিরিস্তি দিয়ে শেষ করা যাবে না।

পরিচর্যায়

লেবুর রস চুলের দারুণ লাইটেনার হিসেবে করে। লেবুর রস দিয়ে চুল ধুলে সূর্যের তাপ থেকে মাথাকে রক্ষা করে। জলপাই তেলের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে নখ ভিজিয়ে রাখলে নখের ক্ষয় দূর হয়ে সুস্থও সুন্দর হয়ে ওঠে। শীতের শুষ্ক ঠোঁটে রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে লেবুর রস মাখিয়ে ঘুমালে ঠোঁট সুন্দর হয়। বলিরেখা দূর করতেও সহায়ক এই লেবুর রস। দাঁতের যত্নে লেবুর রসের রয়েছে সহায়ক ভূমিকা। লেবুর রস শরীরের দুর্গন্ধ দূর করে। ব্ল্যাক হেড আর ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে।

default-image

কেবল আজ নয় লেবু হোক আমাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। অবশ্য বেশি কচলালে তিতা হওয়ার পরিবর্তে দাম বেড়ে যেতে পারে। কারণ করো না প্রতিরোধে এই ভূমিকার কথা শুনেই তো দাম বাড়িয়ে দেওয়া হলো। অবশ্য এখন দাম সহনীয় পর্যায়েই রয়েছে। তবে বাঙালির পাতে লেবু থাকেই। এমনকি লেবু দিয়ে নানা মুখরোচক পদও তৈরি হয়। রান্নার নানা কাজেও রয়েছে লেবুর ভূমিকা।

অতএব জয় লেবুর রসের জয়।

স্বাস্থ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন