বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গাড়ির ড্রাইভিং সিটে টম। পাশে বসা জেনদায়া। হঠাৎ স্টিয়ারিংয়ে হাত রেখেই চুমু খেলেন প্রেমিকাকে। এ রকম ভিডিও অন্তর্জালের দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভক্তদের আর সন্দেহের লেশ ছিল না। এরপর সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম দিন পুরো ব্যাপারটাই ‘জলবৎ তরলং’ করে দিলেন টম।

default-image

১ সেপ্টেম্বর বয়সের ক্যালেন্ডারে জেনদায়া পা রাখলেন ২৫–এ। সেদিনই প্রেমিক টম হল্যান্ড ইনস্টাগ্রামে দুজনার একটি ছবি পোস্ট করে প্রেমিকাকে জানিয়েছেন জন্মদিনের শুভেচ্ছা। সেই ছবি আর ক্যাপশনে যেন দুজন দুজনার প্রেম স্বীকার করে নিলেন। ভক্তরা খুশিতে পাগল হয়ে গেলেন। তার প্রতিচ্ছবি পাওয়া গেল এই ছবি নিয়ে ভক্তদের উন্মাদনায়। টম হল্যান্ডের সেই ছবির নিচে ‘লাইক’ পড়েছে ১ কোটি ৮০ লাখ। আর ১ লাখ ৬৩ হাজার ভক্ত মন্তব্যের উঠানে জানিয়েছেন তাঁদের উচ্ছ্বাস। এটিই ইনস্টাগ্রামে টমের সবচেয়ে বেশি লাইক, কমেন্ট পড়া পোস্ট।

ক্যাপশনে টম লিখেছেন, ‘আমার এমজে (মিশেল জোনস), জন্মদিনের সব খুশি তোমার হাতে ধরা দিক। ফোন দিয়ো।’ টমের এই পোস্টের মন্তব্যে জেনদায়া লিখেছেন, ‘এখনই ফোন করছি।’ ‘কনফার্মড’, ‘ওরা কি তাহলে নিজেদের প্রেমের কথা স্বীকার করে নিল?’, ‘ওএমজি’, ‘এ কী দেখলাম, মনে হচ্ছে, আগামী এক মাস খুশি থাকব’, ‘তোমরা এই মহাবিশ্বের সেরা জুটি’, ‘প্রেম লুকিয়ে রাখা যায় না বুঝলে, এভাবেই বেরিয়ে আসে’ এমন সব মন্তব্য জমা হয়েছে পোস্টের নিচে। অন্যদিকে এমটিভির ভেরিফায়েড ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে মন্তব্য করা হয়েছে, ‘ঘুম থেকে উঠে এ কী দেখলাম, পৃথিবী এ কী দেখল, সেরাহ!’ এমনকি ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেল নিজেও মন্তব্য করেছে এই পোস্টের নিচে।

default-image

মাত্র সাত বছর বয়সে ডিসলেক্সিয়ায় আক্রান্ত হওয়া ইংরেজ অভিনেতা ও নৃত্যশিল্পী টম হল্যান্ড বড় পর্দায় স্পাইডারম্যানরূপে দেখা দিয়ে ঝড় তুলেছেন ভক্তদের মনে। স্পাইডারম্যান, অর্থাৎ পিটার পার্কারের প্রেমিকা হলেন তাঁর সহপাঠী ও বন্ধু মিশেল জোনস। এই মিশেল জোনসই জেন্ডায়া।

সম্পর্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন