যে পাঁচতারকা হোটেলে আছেন আজিম, সেটি আইফেল টাওয়ারের পাশেই। রাস্তা দিয়ে দুই কদম হাঁটতেই চোখে পড়ে কফিশপ। যেদিন যে কফিশপ ‘টানছে’, সেখানে ঢুকে সেরে নিচ্ছেন সকালের নাস্তা। খাওয়াদাওয়া নিয়ে বললেন, ‘আমি যেখানে আছি, এখানে বিশ্বের প্রায় সমস্ত খাবারই পাওয়া যায়। প্রায় প্রতিদিনই এখানকার নানা ব্র্যান্ডের শুটিং চলে। তারপর সবাই মিলে রাতের খাবার খাই। সেটা একটা আনন্দের ব্যাপার। পাশেই একটা লেবানিজ হোটেল আছে। ওখানকার খাবার বেশ ভালো লেগেছে।’

default-image

বুদ্ধি করে নিজের ক্লোদিং ব্র্যান্ড ‘এজেড’–এর কিছু পোশাকও সঙ্গে নিয়ে গেছেন আজিম। প্যারিসের রাস্তায় বা ফরাসি মনোরম স্থাপত্যকে ব্যাকগ্রাউন্ড বানিয়ে একটু সুযোগ পেলেই চট করে নিজের ব্র্যান্ডের ফটোশুটও সেরে ফেলছেন। অর্থাৎ, রথ দেখা কলা বেচা—সবই চলছে। ৩ মার্চ গ্রেস মুনের পোশাক আর অনুসঙ্গে নিয়ে রানওয়েতে হাঁটবেন আজিম। এর আগে ২ মার্চ হয়েছে প্যারিসভিত্তিক ব্যাগের ব্র্যান্ড ল্যানকাস্টারের ফটোশুট। আর ৫ মার্চ হবে একটি স্পোর্টস ব্র্যান্ডের ফটোশুট।

default-image

২৮ ফেব্রুয়ারি প্যারিস পৌঁছেছেন আজিম। সবকিছু ঠিক থাকলে ফিরবেন ৭ মার্চ। কী নিয়ে ফিরবেন? ‘চমৎকার সব স্মৃতি, খাবারের স্বাদ, কাছের মানুষদের জন্য কিছু উপহার। আর হ্যাঁ, আবারও প্যারিস এসে আরও ভালো কাজের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ফিরব।’

জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন