বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মাত্র চার মাসে আগে ভোগের সাংবাদিক এডওয়ার্ড এনিনফুলকে দেওয়া দীর্ঘ সাক্ষাৎকারের একটা অংশ এখন ভাইরাল। সেখানে ‘বিয়ে কবে করবেন?’ এমন প্রশ্নের উত্তরে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী (২০১৪) বলেছিলেন, ‘আমি বুঝি না, মানুষ কেন বিয়ে করে। আপনি যদি একটা মানুষের সঙ্গে থাকতে চান, তো থাকুন। এর জন্য কাগজপত্র, সই-সাবুদের কী প্রয়োজন? কেন দুটো মানুষ সহজে একসঙ্গে জীবন ভাগাভাগি করতে পারে না?’

default-image

এভাবেই মালালা জানিয়েছিলেন তিনি বিয়েতে বিশ্বাসী নন। আর আদৌ কখনো বিয়ে করবেন কি না, সে বিষয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন। আর এর ঠিক চার মাস পেরোতে না পেরোতেই মালালা বিয়ে করে ফেললেন। তাঁর জীবনসঙ্গী আসার মালিক কাগজে সই করছেন, এমন একটি ছবি প্রকাশ করেই ৯ নভেম্বর সন্ধ্যায় দিয়েছেন বিয়ের খবর। আর স্বাভাবিকভাবেই গুরুত্ব দিয়ে এই খবর ছাপিয়েছে ভোগ ইউকে। তাই এই দুই খবর পাশাপাশি রেখে অনেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করে লিখলেন, ‘নোবেলজয়ীর এমনও মুড সুইং হয়!’ ‘দেখুন, ভণ্ডামি কাকে বলে’।

default-image

তবে মালালার পাশে যে কেউ দাঁড়াননি, তা-ও নয়। কয়েকজনের সুর ২৪ বছর বয়সী সর্বকনিষ্ঠ এই নোবেলজয়ীর পক্ষে। ‘তিনি হয়তো ব্যক্তিগতভাবে বিয়েতে বিশ্বাসী নন। এটা একান্তই তাঁর নিজস্ব মতামত। হয়তো নিজের পরিবার, ধর্ম আর সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সেরেছেন। এখন বিয়ে করেছে, তাই সমালোচনা করছেন। আবার বিয়ে না করে একসঙ্গে থাকলেও সমালোচনা করতেন। আপনাদের মুখ কখনোই বন্ধ হবে না। অন্তত বিয়ের দিনে মেয়েটাকে ছেড়ে দিন।’

default-image

সে যা-ই হোক, এই মুহূর্তের সবচেয়ে বেশিবার করা প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে একাধিক পাকিস্তানি গণমাধ্যম। ‘প্রেস ট্রাস্ট অব পাকিস্তান’-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মালালার জীবনসঙ্গী আসার মালিক পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের হাই পারফরম্যান্স বিভাগের মহাব্যবস্থাপক। গত বছরের মে মাস থেকে তিনি এই দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে তিনি পাকিস্তান সুপার লিগের দল মুলতান সুলতানসের অপারেশনাল ম্যানেজারও ছিলেন। ৩১ বছর বয়সী ৫ ফুট ১১ ইঞ্চি উচ্চতার আসার লাহোর ইউনিভার্সিটি অব ম্যানেজমেন্ট সায়েন্সেস থেকে ২০১২ সালে অর্থনীতি ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতক করেন। দুই বছর ধরে মালালার সঙ্গে তাঁর বন্ধুত্ব।

default-image
লাইফস্টাইল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন