বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হ্যারিকে ফ্যাশন আইকন বললে বিনয়ের সঙ্গে হ্যারি বলেন, ‘আমাকে ফ্যাশন আইকন বলা আমার খুবই হাসি পায়। আমি খুব সিরিয়াস মুখ করে মনে মনে হাসি। তবে আমি মনে করি, আমি ক্ষমতাবান, কেননা, আমি মানুষকে একসঙ্গে করতে পারি। আমি যখন গাই, কিছু মানুষ স্টেজের পেছনে আপনমনে এমনভাবে হাসি, ঠাট্টা, নাচ করে, যেন কেউ তাদের দেখছেই না। একটা ঘরে অনেক মানুষ, তারা আনন্দ করছে, সবাই সবাইকে ভালোবাসছে, এটা খুবই শক্তিশালী একটা দৃশ্য। আমি সেটা তৈরি করতে পারি। এ জন্য আমি নিজেকে নিয়ে গর্বিত। আমাকে যদি স্টাইল আইকন বলা হয়, সেটা ভক্তদের ভালোবাসা। আমি সাহসের সঙ্গে কেবল আমি যা, তা-ই হতে চেয়েছি।’ নিজেকে কখন সবচেয়ে সুন্দর লাগে? উত্তরে হ্যারি বলেন, ‘মেডিটেশন করার পর, অথবা যখন আমি ঘুমিয়ে থাকি।’

default-image

মাত্র ১৬ বছর বয়সে ‘ওয়ান ডিরেকশন’ ব্যান্ড গড়েন হ্যারিরা। ইতিহাসের অন্যতম সফল ভ্যান্ড এটি। এটিই প্রথম ব্রিটিশ ব্যান্ড, যার গান যুক্তরাষ্ট্রেও টপচার্টে থেকেছে। এটি ২০১৩ সালের সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়া ব্যান্ড। এয়ান ডিরেকশনের চার অ্যালবাম ‘টেইক মি হোম’, ‘মিডনাইট মেমোরিজ’, ‘ফোর’ ও ‘মেড ইন দ্য এএম’ পরপর চারটি অ্যালবামের চারটিই দখল করে ইউক বিলবোর্ডের টপচার্ট।  মিডনাইট মেমোরিজ সর্বকালের সবচেয়ে বেশি বিক্রীত অ্যালবামগুলোর একটি। বিশ্বব্যাপী এই ব্যান্ডের প্রায় সাত কোটি রেকর্ড বিক্রি হয়েছে। যা এই ব্যান্ডের কেউ কখনো কল্পনাই করেনি। ২০১৬ সালে এই ব্যান্ড ভেঙে যায়। এরপরই হ্যারি স্টাইলস মিউজিকের সঙ্গে সঙ্গে ‘স্টাইলিশ’ হওয়ার দিকে মন দেন। আর এবার তিনি অন্যদেরও স্টাইলিশ বানানোর দিকেও মনোযোগী হচ্ছেন।

default-image
লাইফস্টাইল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন