বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আকর্ষণীয় ফ্যাশন শো দিয়ে শুরু হয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। দেশীয় গানের তালে ১২ জন মডেল ৪ ভাগে তুলে ধরেন টুটলি রহমানের নকশা করা পোশাক। আলাদা করে কোনো বিশেষ কিউ ছিল না। হেরিটেজ পল্লির আঙিনাজুড়েই ছিল মডেলদের পদচারণ। প্রতিটা পর্বেই শাড়ি পরে আসেন মডেলরা। প্রথমে লাল, সবুজ ও সাদা দেশীয় নকশায়, পরে সিল্কের সঙ্গে প্রজাপতির মোটিফের শাড়ি পরে হাঁটেন মডেলরা। এরপর জামদানির তিনটি হালকা রঙের শাড়িতে উপস্থিত হন তাঁরা। এ ছাড়া মডেলরা সিল্কের শাড়িতে শিল্পী জয়নুল আবেদিনের টেপা পুতুল, কাক, দুর্ভিক্ষ, নদী ও নারীকে উপস্থিত করেন। অনুষ্ঠানের গান পরিবেশন করেন শিল্পী স্বপ্নীল সজীব। পুরো অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন সামিউল ইসলাম।

বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ব্লক এ–এর ৮ নম্বর সড়কের ২৩১ নম্বর বাড়িতে হেরিটেজ পল্লির অবস্থান। হাতে তৈরি শাড়ি, কামিজ, টিউনিক, কুর্তি, গয়না, অ্যাকসেসরিজ, হস্তশিল্প, শোপিস, হোম ডেকোর—শোরুমটির সব পণ্যই টুটলি রহমানের ডিজাইন করা। মহামারি চলাকালীন হেরিটেজ পল্লি ছিল একটি অনলাইনভিত্তিক স্টার্টআপ প্রকল্প।

default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
default-image
লাইফস্টাইল থেকে আরও দেখুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন