সাইবার অপরাধ ঠেকাতে তিন পরামর্শ

১. যাঁরা অনলাইন বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করেন, তাঁদের সাইবার ক্রাইম বিভাগের পেজে গিয়ে আইনগুলো ভালো করে পড়ুন, জানুন।


২. অনলাইনে যদি কেউ ভালোবাসার প্রস্তাব দেয়, তাহলে ভালো করে যাচাই-বাছাই করুন। ফেসবুকে বা ইনস্টাগ্রাম থেকে কিছু না জেনেশুনে প্রেমের প্রস্তাব পেলে প্রশ্ন করতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে পটে যাওয়ার কিছু নেই। আর এটা ছেলে বা মেয়ে—সবার জন্যই প্রযোজ্য।


৩. আর তৃতীয়ত, যদি সাইবার অপরাধের শিকার হয়েই যায়, তাহলে লোকে কী বলবে, বন্ধুরা কী বলবে, সমাজ কী বলবে—এটা না ভেবে আইনের পরামর্শ নিতে হবে। তথ্য দিয়ে সমস্ত বিষয়টা যথাসম্ভব খুলে বলতে হবে।

প্রযুক্তির উন্নয়ন, সহজলভ্যতা আর জনপ্রিয়তার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে সাইবার ক্রাইম। এটি এতটাই বেড়ে চলেছে যে এটি প্রতিরোধে ২০১৬ সাল থেকে পালিত হচ্ছে ‘স্টপ সাইবার বুলিং’ ডে। প্রতিবছর জুন মাসের তৃতীয় শুক্রবার পালিত হয় দিনটি। এ বছর ১৮ জুন শুক্রবার আন্তর্জাতিকভাবে পালিত হয়েছে ‘স্টপ সাইবার বুলিং’ ডে।

বাংলাদেশেও ছিল নানা আয়োজন। সামাজিক সংগঠন ক্রেয়ন ম্যাগ ‘নো: অ্যান অ্যান্ড টু  ক্যাম্পেইন’-এর আয়োজন করেছে। এর অংশ হিসেবে বাংলাদেশের অসংখ্য তারকা অংশ নিয়েছেন।

তারকাদের মধ্যে আছেন মেহের আফরোজ শাওন, রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা, পিয়া জান্নাতুল, স্বাগতা, জুনায়েদ ইভান, এলিটা করিম, সীঁথি সাহা, অন্তু করিম, মিশু চৌধুরীসহ আরও অনেকে। ভিডিও বার্তায় এলিটা করিম জানান, তিনি সাইবার বুলিংয়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য কোনো নেতিবাচক খবর বা মন্তব্য শেয়ার করেন না। এর ফলে এই বুলিংকারীরা আরও উৎসাহ পায়। এলিটা জানান, বুলিংয়ের শিকারদের মধ্যে শতকরা ৮০ শতাংশই নারী। তাদের গড় বয়স ১৩-১৪ থেকে ২২-২৩০-এর মাঝামাঝি। তা ছাড়া মেয়েদের পাশাপাশি অনেক ছেলেও সাইবার বুলিংয়ের শিকার।

তাঁরা রুখে দাঁড়িয়েছেন সাইবার বুলিংয়ের বিরুদ্ধে
সংগৃহীত

পিয়া জান্নাতুল বলেন, ‘আজকে আমি হয়তো সাইবার বুলিংয়ের প্রতিবাদ করতে পারি। কিন্তু আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে অধিকাংশ নারীই এটা পারেন না। আমি সবার উদ্দেশে বলতে চাই, ‘অপরাধী যে-ই হোক না কেন, অপরাধীকে অপরাধী বলুন। ভিকটিমকে অপরাধী বানাবেন না।’  

ক্রেয়নম্যাগের প্রতিষ্ঠাতা তানজিরাল দিলশাদ দ্বিতান বলেন, ‘মিথিলা সাইবার ক্রাইম বন্ধের আহ্বান জানিয়ে ভিডিও পোস্ট করল। সেই পোস্টের নিচেও কী জঘন্যভাবে বুলিং করা হয়েছে তাঁকে। সাইবার বুলিং বন্ধ করতে গিয়ে সাইবার বুলিংয়ের শিকার হলেন তিনি। তারকারা সাইবার বুলিংয়ের শিকার হলে আওয়াজ দেন, প্রতিবাদ করেন। তাও এই অবস্থা! তাহলে সাধারণ মেয়েদের কী অবস্থা? কেবল মেয়েরা নয়, পুরুষেরাও সাইবার অপরাধের শিকার। আমি একজনকে চিনি, যে মিডলইস্টে কাজ করে। তার সঙ্গে বাংলাদেশ থেকে এক মেয়ে ফেসবুকে সম্পর্ক করে। সিঙ্গেল মাদারের পরিচয় দেয়। বানিয়ে বানিয়ে গল্প করে সিমপ্যাথি আদায় করে। পাঁচ বছরে সেই মেয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।’

সাইবার অপরাধ ঠেকাতে তিনটি পরামর্শও দেন দ্বিতান:


১. যাঁরা অনলাইন বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করেন, তাঁদের সাইবার ক্রাইম বিভাগের পেজে গিয়ে আইনগুলো ভালো করে পড়তে হবে, জানতে হবে।


২. অনলাইনে যদি কেউ ভালোবাসার প্রস্তাব দেয়, তাহলে ভালো করে যাচাই-বাছাই করতে হবে। ফেসবুকে বা ইনস্টাগ্রাম থেকে কিছু না জেনেশুনে প্রেমের প্রস্তাব পেলে প্রশ্ন করতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে পটে যাওয়ার কিছু নেই। আর এটা ছেলে বা মেয়ে সবার জন্যই প্রযোজ্য।


৩. আর তৃতীয়ত, যদি সাইবার অপরাধের শিকার হয়েই যায়, তাহলে লোকে কী বলবে, বন্ধুরা কী বলবে, সমাজ কী বলবে, এটা না ভেবে আইনের পরামর্শ নিতে হবে। তথ্য দিয়ে পুরোটা বিষয়টা যথাসম্ভব খুলে বলতে হবে।

এই ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে শনি ও রোববার রাত নয়টায় রেডিও টুডে আয়োজন করেছে বিশেষ টক শোর। সেখানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওন, রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা ও সাংবাদিক জ ই মামুন।