বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

হালকা টিয়া রং, মিষ্টি গোলাপি, ছাই রং বা সফট অরেঞ্জ কালার—দুপুরবেলায় পোশাকে এ রংগুলোই বেশি আরাম দেবে, জানালেন কে ক্র্যাফটের স্বত্বাধিকারী খালিদ মাহমুদ খান।

দুপুরের দিকে যে পোশাকটি পরবেন, তাতে খুব বেশি জমকালো কাজ এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। তবে যেহেতু ঈদের দিন, অতিথিদের আনাগোনা বা ঘুরতে যাওয়ার পরিকল্পনা তো থাকবেই, তাই পোশাকে হালকা কারচুপির কাজ থাকতে পারে। এতে পোশাকে উৎসবের আমেজ ফুটে উঠবে। জারদৌসি বা কারচুপি কাজও বেছে নিতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন, নকশাটা যেন হয় হালকা।

default-image

খুব ভারী মেকআপ নয়, ঈদের দুপুরে বেইস মেকআপ ম্যাট রাখার পরামর্শ দিলেন জারাস বিউটি লাউঞ্জের রূপবিশেষজ্ঞ ফারহানা রুমি। সাধারণ সাজেও যদি বাসায় থাকেন, দেখবেন, মুখ থেকে তেল বের হচ্ছে। এ জন্য সাজগোজ শুরু করার আগে ভালো করে মুখ ধুয়ে বরফ লাগানোর পরামর্শ দিলেন এই রূপবিশেষজ্ঞ। এরপর টোনার ব্যবহার করুন।

মেকআপের সব প্রসাধনী ম্যাট হওয়া ভালো। এতে তেল কম বের হবে। ঘামলেও মেকআপ নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকবে না।

default-image

বাসায় থাকলে ঈদের দিনদুপুরে চোখে আইলাইনার ব্যবহার করতে পারেন। চোখের পাতায় মাসকারা দিন ঘন করে। পোশাকের রং লাইট টোনের হলে লিপস্টিক ডার্ক টোনের হবে। আর পোশাকের রং যদি হয় গাঢ়, তাহলে হালকা রঙের লিপস্টিকে ভালো দেখাবে। তারপরও নিজের রুচি আর পছন্দ বলে একটি থাকে, তাই এদিন একেবারেই নিজের মতো সাজতে ভালোবাসেন অভিনেত্রী সারিকা সাবা।

দুপুরের দিকে হালকা মেকআপেই সাজতে ভালোবাসেন সাবা। বাসায় অতিথি আপ্যায়নেই কাটে সময়টা। কামিজেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। কানে দুল আর গলায় হালকা লকেটেই পরিপূর্ণ হয় তাঁর ঈদের দুপুরের সাজ।

default-image

তবে সাজটা যেমনই হোক না কেন, চুল বাধার দিকে তাঁর বিশেষ খেয়াল থাকে। শাড়ি পরলে চুল খোলা রাখতে ভালোবাসেন। এ সময় চুলের নিচের দিক হালকা কোঁকড়া করে নেন। যদি সালোয়ার কামিজ পরে বাইরে যান, তাহলে পুরো চুলেই করেন স্পাইরাল কার্ল।

তবে বাসায় থাকলে নিজেকে একটু ফ্রেশ লুকে দেখতে ভালোবাসেন। এ সময় টেনে পেছনে খোঁপা বাঁধেন। ন্যুড লিপস্টিক আর খোঁপায় জড়ানো ফুলে ঈদের দুপুরে যেন আরও স্নিগ্ধ হয়ে ওঠেন সারিক সাবা।

রূপচর্চা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন