default-image

বাঙালি নারীর ওয়ার্ডরোবের সবচেয়ে বিশেষ জায়গাটি বরাদ্দ থাকে শাড়ির জন্য। তিন বছরের তরুণ ব্র্যান্ড কিউরিয়াসের সেটি অজানা নয়। তাই এবারের ঈদে শাড়ির এক বিশেষ সংগ্রহ প্রদর্শিত হয় কিউরিয়াসের বনানীর মূল ভবনের উঠানে।

default-image

এ সংগ্রহ কেবল সংগ্রহ নয়, এটি একটি নাগরিক ফ্যাশনেবল লাইফস্টাইলের সমাধানও। কেননা, এখানে কেবল শাড়ি নয়, শাড়ির সঙ্গে আছে ব্লাউজ, জুতা বা স্যান্ডেল, ম্যাচিং হাতব্যাগ আর গয়না। ফলে যানজটের ব্যস্ততম নগরজীবনে ঘুরে ঘুরে ম্যাচিং করে সবকিছু কেনার ঝক্কি আর ক্লান্তি থেকে মুক্তি দিয়েছে এ সংগ্রহ।  

default-image

এ ছাড়া প্রদর্শিত হয়েছে নিত্যদিনের যাপনে কাজে লাগে এমন সব তৈজসপত্র। আর সেগুলো তৈরি হয়েছে ফেলে দেওয়া কাঠ আর থেকে যাওয়া বৃক্ষের শরীর থেকে। ৫৫টি পণ্য প্রদর্শিত হয়েছে এ বিভাগে। সেগুলোতে রাখা ছিল মিষ্টি, নাড়ু, সমুচা, রোল, ফুলের তোড়াসহ আরও নানা কিছু।

default-image

দেশীয় ঐতিহ্যবাহী সংগ্রহের সঙ্গেই ছিল ওয়েস্টার্ন কালেকশন। গরমকে মাথায় রেখে বেশির ভাগ পোশাক তৈরি হয়েছে সুতি কাপড়ে সূক্ষ্ম হাতের কাজে। প্রতিটি পোশাক তৈরি হয়েছে আরামের সঙ্গে আকর্ষণীয় লুকের বিষয়টি মাথায় রেখে। এভাবে সব সংগ্রহে ঐতিহ্যকে আধুনিকতার র‍্যাপিং পেপারে মুড়ে বর্তমান থেকে আগামীর সংযোগ হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে ফ্যাশন ও লাইফস্টাইল পণ্যের অবয়বে।

default-image

শুরুতেই ছিল মিট দ্য প্রেস। সেখানে মাইক্রোফোন হাতে উপস্থাপকের ভূমিকা নেন এ প্রদর্শনীর কিউরেটর ও কিউরিয়াসের প্রধান ডিজাইনার চন্দ্রশেখর সাহা। আগত সাংবাদিক ও অতিথিদের সঙ্গে কথা বলেন ডোকো গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেন ও কিউরিয়াসের সিইও (প্রধান পরিচলন কর্মকর্তা) বিশ্বজিৎ রায়। এরপর প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন এই তিনজন। প্রদর্শনী শেষে ছিল ইফতার ও নামাজের বিরতি।

default-image

সন্ধ্যায় শুরু হয় ফ্যাশন শো। এ শো কোরিওগ্রাফি করেন মডেল মারিয়া কিসপট্টা।  
এত সব আয়োজনের মাঝে কিউরিয়াস কিছু সুখবর দিতেও ভুল করেনি। ইতিমধ্যে ঢাকার বনানী (মূল ভবন), মিরপুর, ধানমন্ডি আর বসুন্ধরা সিটিতে কিউরিয়াসের চারটি আউটলেট আছে। শিগগিরই তারা ঢাকার উত্তরার একটি নতুন শাখা খুলতে চলেছে। এ ছাড়া ঢাকার বাইরে চট্টগ্রামেও পৌঁছাতে চলেছে কিউরিয়াস।

default-image
ফ্যাশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন