বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদতে এর একটা উদ্দেশ্য আছে। তাঁরা হেঁটেছেন ‘লা ডিফাইল ল’রিয়েল প্যারিস ২০২১’–এর ব্যানারে। বেশ কয়েক বছর ধরেই ঐশ্বরিয়া ল’রিয়েল প্যারিসের শুভেচ্ছাদূত। ফ্যাশন আইকন হিসেবে বিশ্বজোড়া তাঁর নামডাক আছে। প্যারিস ফ্যাশন উইকে তাঁর হাঁটা অন্য মডেলদের জন্য নিশ্চয়ই অনুপ্রেরণার।

default-image

‘লা ডিফাইল’ ল’রিয়েলের একটা বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। নারীর ক্ষমতায়ন, বিভিন্ন উদ্যোগের মাধ্যমে সমাজে শক্তিশালী বার্তা দেওয়া ছাড়াও মূলত নারী আর পুরুষের সমতার লক্ষ্যে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে তারা। এই উদ্যোগের সঙ্গে সারা বিশ্বের প্রভাবশালী নারীদের যুক্ত করার লক্ষ্যে লা ডিফাইল কাজ করছে। বিশেষ এই ফ্যাশন শো এবার উন্মুক্ত জায়গায় আয়োজিত হয়েছে। খোলা রাস্তায় নারীরা তাঁদের পছন্দসই জামাকাপড় পরে চলাফেরা করার পূর্ণ অধিকার রাখেন—এই বার্তাই দিতে চেয়েছেন আয়োজকেরা। চলার পথে নারীরা যেন হেনস্তার শিকার না হন, র‌্যাম্পওয়াকের মাধ্যমে সেই বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। আর এখানেই হেঁটেছেন এবারের প্যারিস ফ্যাশন উইকে অংশ নেওয়া সবচেয়ে আলোচিত, প্রভাবশালী নারীরা।

ঐশ্বরিয়ার পরনে ছিল সাদা গাউন। সাদার বেশ কয়েকটি ‘শেড’ ব্যবহার করা হয়েছে এই গাউনে। গাউনে ছিল প্রাচ্য আর পাশ্চাত্যের মিশেল। হঠাৎ করে দেখলে মনে হতে পারে, শাড়িটাই বুঝি একটু অন্যভাবে পরা হয়েছে! ঠোঁটে ছিল ‘হট পিঙ্ক’ লিপস্টিক। সঙ্গে চুলগুলোকে দিয়েছিলেন অবাধ স্বাধীনতা। কানে ছোট্ট হীরের টপ। পায়ে সাদা হিল। মেকআপে ‘মিনিমালিস্টিক অ্যাপ্রোচ’। ব্যস, এতেই সব মনোযোগ কেড়েছেন ঐশ্বরিয়া। হেঁটেছেন পূর্ণ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে।

default-image

বিশ্বের সেরা চার ফ্যাশন উইকের একটি প্যারিস ফ্যাশন উইক। বরাবরের মতো এবারও আয়োজক হিসেবে আছে ফ্রেঞ্চ ফ্যাশন ফেডারেশন। সঙ্গে আছে শ্যানেল, ক্রিস্টিয়ান ডি’ওর, ল’রিয়েল, সেন্ট লরেন্টের মতো নামকরা সব প্রতিষ্ঠান। এই এক সপ্তাহজুড়ে অনুষ্ঠিত হবে এক শর বেশি শো। চলবে ৬ অক্টোবর পর্যন্ত।
২০২২ সালে ঐশ্বরিয়া দেখা দেবেন বড় পর্দায়। মনি রত্নম পরিচালিত ‘পন্নিইন সেলভান’ সিনেমায় দেখা দেবেন তিনি। এর আগে ২০১৮ সালে তাঁকে দেখা গেছে ‘ফ্যানি খান’ সিনেমায়। সিনেমাটি অবশ্য বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে।

default-image
ফ্যাশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন