ফ্যাশন ফটোশুটে বই পড়ার বার্তা

একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে ভাষা ও সাহিত্য নিয়ে নানা ধরনের তোড়জোড় চোখে পড়ে প্রতিবছর। ফ্যাশন হাউসে একুশের ব্যস্ততা বাড়ে আরও আগে। প্রতিবছর প্রভাতফেরিকে উপলক্ষ করে সাদা আর কালো রং নিয়ে সৃজনশীলতায় মাতেন ডিজাইনাররা।

default-image

তবে ভাষার মাসে বই পড়াকে উৎসাহিত করতে চমৎকার এক ধারণা নিয়ে ফটোশুট করেছেন ফ্যাশন ডিজাইনার বিপ্লব সাহা। সাদা-কালো পোশাকের সঙ্গে মডেল বাছাই করে স্টাইলিং করেছেন খানিকটা পশ্চিমা ঢঙের। আর শহুরে শীতের এক ভোরে। দেশে বইয়ের আড়ত বলে পরিচিত ঢাকার বাংলাবাজারে এই ফটোশুট করা হয় বইয়ের দোকানের সামনে।

বিজ্ঞাপন

কেন এই ভাবনা

default-image

ডিজাইনার বিপ্লব সাহা বলেন, যেহেতু পোশাক নিয়েই কাজ করি, তাই নিয়মিত ফটোশুটের নানা ভাবনা মাথায় আসে। সময় ও পোশাকের ধরন বুঝে ফটোশুট করা হয় সেসব ভাবনায়। তবে এই ফটোশুটের ভাবনা আসলে পোশাক নয়। নিজের ভেতরের এক ধরনের তাড়না থেকে এই ফটোশুট। আমাদের ছোটবেলায় শিশুদের খেলনা ছিল পুতুল, গাড়ি, হাতি, ঘোড়া। এরপর বই হাতে নিয়ে ছবি দেখে একটু একটু করে পড়া শিখে বড় হতো শিশুরা। এখন শিশুদের হাতে থাকে একটা মোবাইল ফোন। যা দরকার সবই তারা এই মোবাইল দিয়ে মিটিয়ে নিচ্ছে।

default-image

শিশুরা এখন টিভির চেয়েও মোবাইলে ইউটিউব দেখতে ভালোবাসে। বই পড়ার অভ্যাস কমে যাচ্ছে আশঙ্কাজনক হারে। অথচ বলা হয়, বই মানুষকে মানবিক হতে সাহায্য করে। বিপ্লব সাহার মতে, কাগজের একটি বই হাতে নিয়ে পড়ার ভেতরে যে আনাবিল আনন্দ, সেটা প্রায় ভুলতে বসেছে তরুণ প্রজন্ম। নতুন বইয়ের ঘ্রাণের টানে বইয়ের সঙ্গে গড়ে ওঠে আত্মিক সম্পর্ক। আর এসব ভাবনার পর নিজের জায়গা থেকে কিছু করার উদ্যোগ নেন তিনি।

বই হোক পরম বন্ধু

default-image

হাজারো প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পেতে সাহায্য করে একটি ভালো বই। ছাপা কাগজে বই পড়ার অভ্যাস ফিরিয়ে আনতে ছোট ছোট উদ্যোগ নেওয়া যেতে পারে। এই ফটোশুটের ছবিগুলো দেখে যদি একজন মানুষও বই পড়তে উৎসাহিত হন, তাহলেই নিজের চেষ্টাকে সার্থক ভাবতে রাজি এই ডিজাইনার। তিনি বলেন, একটা সময় মনে করা হতো খাদি কাপড়ের পোশাক শুধু কবি-সাহিত্যিকেরাই পরেন। এখন সেই চল ভেঙে গেছে। খাদির নবজাগরণ তরুণ প্রজন্মের ভেতরেও বেশ সাড়া ফেলেছে। তেমনি বই পড়ার প্রচলনও একটি সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে সামনে এগিয়ে নেওয়া জরুরি।

default-image

শিশুদের মধ্যে বই পড়ার আগ্রহ তৈরি করতে যথাযথ পারিবারিক আবহ দরকার। প্রযুক্তি থেকে শিশুকে পুরোপুরি বাইরে রাখা কোনো কাজের কথা নয়। সন্তানকে আগামী দিনের জন্য প্রস্তুত করতে প্রযুক্তি যেমন জরুরি, তেমন দরকার বই পড়ার অভ্যাস। বইয়ের জ্ঞান যেকোনো মানুষের ভাবনার জগৎ আরও প্রসারিত করে। তাই দেশ-বিদেশের নানা ধরনের বই সন্তানকে পড়তে উৎসাহিত করা দরকার প্রত্যেক মা-বাবার। আর ছোটবেলা থেকে বইয়ের প্রতি ভালোবাসা তৈরি হলে এরপর সে নিজেই খুঁজে নেবে পছন্দের বই।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বরঙের উদ্যোগ

default-image

‘আগে চাই বাংলা ভাষার গাঁথুনি, তারপরে ইংরেজি শেখার পত্তন’—রবীন্দ্রনাথের এই বিখ্যাত উক্তিকে ধারণ করেই ‘ভাষার গাঁথুনি’ শিরোনামে একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে বিশ্বরঙ। যেখানে অংশ নিতে পারবেন শুধু ইংরেজি মাধ্যমে পড়াশোনা করা শিক্ষার্থীরা। যাদের বয়স হতে হবে ৮ থেকে ১৫ বছর পর্যন্ত। প্রতিযোগিতার বিষয় আবৃত্তি ও সংগীত। জাতীয় সংগীত অথবা ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানটি খালি গলায় গেয়ে অথবা আবৃত্তি করে আগামী ৩১ মার্চের মধ্যে পাঠাতে হবে ই–মেইলে। ঠিকানা: vashargathuni@gmail.com

কনসেপ্ট ও স্টাইলিং: বিপ্লব সাহা; মেকআপ: রিজভী হোসাইন; মডেল: তানিয়া জেসমিন, শিহাব, আদর, রোমান; ছবি: অনিক চন্দ

ফ্যাশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন