বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইনস্টাগ্রামে তাঁর অনুসারীর সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে ২৬ কোটি ৭০ লাখ। সে যা-ই হোক, যে কারণে কার্ডাশিয়ানকে নিয়ে এত কথা, সেটা হলো এই মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, মডেল ও ব্যবসায়ী সম্প্রতি একটি গুরুত্বপূর্ণ পুরস্কার পেতে চলেছেন। ৭ ডিসেম্বর রাতে ‘পিপলস চয়েস অ্যাওয়ার্ড ২০২১’-এর মঞ্চে ‘ফ্যাশন আইকন অ্যাওয়ার্ড’ উঠবে তাঁর হাতে। এনসিবি আর ই! নিশ্চিত করেছে এই খবর।

default-image

৪১ বছর বয়সী, চার সন্তানের মা এই ফ্যাশন ইনফ্লুয়েন্সারকে এই পুরস্কার দেওয়ার ব্যাপারে বলা হয়েছে, ‘কিমের ফ্যাশনবোধ খুবই অভিনব। সব সময় তিনি নতুন কোনো চমক দিতে আগ্রহী। হয় সেটা সফল হয়, নতুবা ব্যর্থ হয়ে তীব্র সমালোচনা, ট্রল, মিমকে সঙ্গী করে আলোচনায় থেকে আরও বেশি করে সফল হয়। একা হাতে নিজস্ব ভাবনা, ডিজাইন আর ট্রেন্ড সেটিং স্টাইল দিয়ে ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিকে দাপটের সঙ্গে প্রভাবিত করেছেন তিনি।’

default-image

২০০৭ সালে ‘কিপিং আপ উইথ দ্য কার্ডাশিয়ানস’ দিয়ে প্রথম পাদপ্রদীপের আলোয় আসেন কিম। আর ২০২১-এ যখন চূড়ান্ত পর্ব প্রচার হলো, তত দিনে এই কার্ডাশিয়ান বিউটি মোগল হিসেবে বিলিয়ন ডলারের ব্যবসার সাম্রাজ্য গড়েছেন।

default-image

কিম যখনই রেড কার্পেটে থেমে পোজ দিয়েছেন, সেটা একটা ‘ফ্যাশন মোমেন্ট’ হয়েছে। তাঁকে প্রায়ই ব্যালেনসিয়াগা, ভারসাচি আর মুগলারের পোশাকে দেখা গেছে। আর বাস্তবতা এমনই যে, সেটি এই ফ্যাশন ব্র্যান্ডগুলোকে প্রতিষ্ঠা পেতে আরও সহজ করেছে। ই! নিউজের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট জেন নিল বলেন, ‘কিম এই পুরস্কারের যোগ্য। কেননা, তিনি তাঁর ফ্যাশনকে আন্তর্জাতিকভাবে ফ্যাশন ট্রেন্ড হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন। দশকের পর দশক ধরে তিনি ফ্যাশন সংস্কৃতির ধারক ও বাহক হিসেবে কাজ করছেন।’

default-image

দ্য সোশ্যাল স্টার অব ২০২১ ক্যাটাগরিতেও মনোনীত হয়েছেন কিম। সেখানে তাঁর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করবেন অ্যাডিসন রে, ব্রিটনি স্পিয়ার্স, ডোয়াইন জনসন, জাস্টিন বিবার, কাইলি জেনার, লি নাজ এক্স ও চার্লি ডেমেলিও।

default-image

এর আগে এই পুরস্কার পেয়েছেন মাত্র তিনজন ফ্যাশন আইকন। ট্রেসি ইলিস রস, গোয়েন রেন স্টেফানি ও ভিক্টোরিয়া বেকহাম।

default-image
ফ্যাশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন