বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কাঠের আসবাব

কাঠের আসবাব মানেই তাতে বার্নিশ থাকা। সে ক্ষেত্রে পানি ব্যবহার করা যাবে না। এতে বার্নিশ উঠে যাবে। তাই শুকনা কাপড় দিয়ে ওপরের ময়লা তুলে অয়েল বা ওয়াক্স লিকুইড ব্যবহার করতে হবে।

default-image

চামড়ায় মোড়া আসবাব

এ ধরনের আসবাব খুব সাবধানে ব্যবহার করতে পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ, চামড়ায় মোড়া আসবাব একটু অনিয়মেই নষ্ট হয়ে যায়। এ ধরনের আসবাব শুকিয়ে ফেটে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে সব থেকে বেশি। এ কারণে খুব বেশি তাপ থেকে কমপক্ষে ২ ফিট দূরে রাখতে হবে। এ ছাড়া সূর্যের আলো সরাসরি যেখানে পড়ে, সেই পাশেও রাখা যাবে না। এ নিয়মের বাইরে গেলে কয়েক বছরেই নষ্ট হবে এর সৌন্দর্য। এ ধরনের আসবাব বিশেষভাবে পরিষ্কারের জন্য ১–৪ কাপ সাদা ভিনেগারের সঙ্গ ১–২ কাপ পানি মিশিয়ে পাতলা কাপড়ের সাহায্যে পরিষ্কার করতে হবে। এরপর চামড়ার জন্য বিশেষ সাবান দিয়ে আবার পরিষ্কার করা এবং শেষে শুকনা কাপড় দিয়ে মুছে ফেলা।

এ ছাড়া পাওয়া যায় চামড়া পলিশ করার জন্য উপকরণ কিংবা পলিশ করার জন্য লোকও ডাকা যেতে পারে নির্দিষ্ট বিরতিতে।

গদিমোড়া আসবাব

গদির আসবাবে গদির ওপরে কাপড় মোড়ানো থাকে। এর ওপরের কাপড় হতে পারে বিভিন্ন ধরন ও রঙের। এ ধরনের আসবাব সূর্যের আলো সরাসরি আসে, এমন জায়গা থেকে একেবারেই দূরে রাখা উচিত। কারণ, ফেব্রিকের রঙ ফ্যাকাশে হয়ে যায়। ভ্যাকিউম ক্লিনার দিয়ে প্রতিদিন পরিষ্কার রাখতে হবে, যেন ময়লা না জমে। সোফা, চেয়ারে কুশন ও কভার প্রতিদিন উল্টে দিতে হবে, যেন দুই পাশই সমানভাবে ব্যবহার হয়। এ ছাড়া দাগ কমাতে স্কচগার্ড ব্যবহার করা যায়। এটি কাপড় ভালো রাখে।

default-image

বাঁশ ও বেতের আসবাব

বাঁশ–বেত ছাড়াও গোলপাতা, হোগলার মতো এমন অনেক প্রাকৃতিক উপকরণে আসবাব তৈরি হয়ে থাকে। এ ধরনের আসবাব সহজেই শুষ্ক হয়ে যায়। তাই সরাসরি রোদের আলো ও তাপে রাখা যাবে না। প্রতিদিন ধুলা পরিষ্কার ও ভ্যাকিউম ক্লিনার দিয়ে ফাঁকে থাকা ময়লা পরিষ্কার করা উচিত। এ ধরনের ফাইবারের প্রাকৃতিক ময়েশ্চার ধরে রাখতে বাথটবে হালকা গরম পানিতে ভেজাতে হবে বা স্প্রে করতে হবে।

ছবি: পেকজেলসডকম

গৃহসজ্জা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন