অফিসে আহারের জন্য যে বিরতি দেওয়া হয়, সেই সময়টা গল্পগুজব বা আড্ডা না দিয়ে যদি সহকর্মীরা মিলে একটু হাঁটাহাঁটি বা ব্যায়াম করেন, তবে কেমন হয়? সম্প্রতি এ রকমই একটি বিষয়ে গবেষণা করেছেন বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। আর তা প্রকাশিত হয়েছে জার্নাল অব মেডিসিন অ্যান্ড সায়েন্স অব স্পোর্টস-এ।
গবেষণায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মীদের নিয়ে ১০ সপ্তাহ ধরে একটি জরিপ করা হয়। এক দলকে সপ্তাহে তিন দিন বিরতির সময়টাতে অফিসের ভেতর বা বাইরে হাঁটাহাঁটি করতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়, অন্য দলটি খেতে খেতে গল্পগুজব করে বা ফোনে কথা বলে বা ফেসবুকে সময় কাটায়। ১০ সপ্তাহ পর দেখা গেল প্রথম দলটি বিরতির পর বা বিকেলে কাজে বেশি মনোনিবেশ করতে পারছে, তাদের কাজের আগ্রহ ও ইতিবাচক মনোভাবও গেছে বেড়ে। বিকেলে কাজে যে ঢিলেঢালা ভাব বা আলস্য আসে তা-ও এদের কম। এমনকি মানসিক চাপ অনেকটাই গেছে কমে।
গবেষকেরা এর ওপর ভিত্তি করে ইদানীং দুপুরের খাবারের বিরতির সময়টাকে আরও একটু বাড়াতে পরামর্শ দিচ্ছেন, যাতে খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে খানিকটা ব্যায়ামও সেরে ফেলা যায়। আর এতে লাভবান হবে অফিসই। সূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস

বিজ্ঞাপন
রসনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন