রেসিপি–স্ট্রবেরি জ্যাম

বর্তমানে বাংলাদেশে স্ট্রবেরির ব্যাপক চাষাবাদ হচ্ছে। এটি বেশ জনপ্রিয় একটি ফল। এটি স্বাদে যেমন স্বতন্ত্র, তেমনি পুষ্টিগুণে ভরপুর।

default-image

পুষ্টিগুণ

স্ট্রবেরি অত্যন্ত পুষ্টিসমৃদ্ধ একটি ফল। এতে আছে ভিটামিন এ, সি, ই, ফলিক অ্যাসিড, সেলেনিয়াম, ক্যালসিয়াম, পলিফেনল, এলাজিক অ্যাসিড, ফেরালিক অ্যাসিড, কুমারিক অ্যাসিড, কুয়েরসিটিন, জ্যান্থোমাইসিন ও ফাইটোস্টেরল, যা আমাদের শরীরের জন্য বিশেষ উপকারী!

আমার আজকের এই রেসিপি একদম সহজ, কোনো রকম প্রিজারভেটিভ, পেকটিন ছাড়াই!

বিজ্ঞাপন

তিনটি মাত্র উপকরণ দিয়ে বানিয়েছি এই স্ট্রবেরি জ্যাম। দেখতে যেমন সুন্দর, খেতেও তেমন দারুণ।

উপকরণ

স্ট্রবেরি ১ কেজি, লেবুর রস ২-৩ চামচ, চিনি ১-২ কাপ বা আরও বেশি।

default-image

প্রণালি

প্রথমে স্ট্রবেরি ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিয়েছি। এরপর এগুলো একটু মোটা করে কুচি করে নিয়েছি। একটি স্ট্রবেরি ৬ টুকরো করলেই হবে। জ্যাম বানাতে ননস্টিক পাত্র হলে ভালো হয়। একটু ডেকচি টাইপ হলে গায়ে ছিটা লাগবে না। এখন কুঁচানো স্ট্রবেরি হাত দিয়ে ভালো করে কচলে চিনি আর লেবুর রস মিশিয়ে কিছুক্ষণ (২-৩ মিনিট) রেস্টে রেখেছি।

এরপর পাত্রটি চুলায় মাঝারি আঁচে বসিয়ে দিয়ে নাড়তে থাকলাম যাতে নিচে লেগে না যায়। ইচ্ছেমতো আঁচ বাড়িয়ে কমিয়ে এটাকে ঘন করে নিলাম। ১০ থেকে ১৫ মিনিট পরেই এটি চকচকে সুন্দর জ্যামের রং হয়ে গেল। এখন একটি ছোট প্লেটে অল্প একটু মিশ্রণ নিয়ে দেখেছি। এটা আর বেয়ে পড়ছে না! ব্যস তৈরি হয়ে গেল আমার স্ট্রবেরি জ্যাম।

default-image

এখন জ্যাম একটু ঠান্ডা হতে দিয়ে আমি আগেই রেডি করা (ধুয়ে শুকিয়ে রাখা) কাচের বয়াম একটি ঠান্ডা পানির পাত্রে এমনভাবে বসিয়েছি, যাতে কাত হয়ে পড়ে পানি না ঢুকে যায়। এ কাজ একটু তাড়াতাড়ি করেছি, যাতে জ্যাম বেশি ঠান্ডা হয়ে না যায়।
এখন একটি শুকনো চামচ দিয়ে জ্যাম বোতলে সুন্দর করে ঢেলে নিলাম। সম্পূর্ণভাবে ঠান্ডা হয়ে গেলে ঢাকনা দিয়ে জারের মুখ আটকে ফ্রিজে রেখে দিলাম। আমি পুরো কাজটি রাতের বেলা করেছি। তাই সকালে সবাই স্ট্রবেরি জ্যাম দিয়ে ব্রেকফাস্ট করেছি!
এই জ্যাম ফ্রিজে রেখে ২ থেকে ৩ সপ্তাহ খাওয়া যায়!

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0