default-image
বিজ্ঞাপন

ভারতীয় ফাইন ডাইনিংয়ে সুপরিচিত ব্র্যান্ড খাজানা। দীর্ঘ দুই দশক অব্যাহত রেখেছে নানা স্বাদের রসনার ধারাবাহিকতা। বাংলাদেশের ভোজনপ্রিয়দের কাছে সুপরিচিত নাম। বিভিন্ন সময়ের খাজানার নানা আয়োজন নগরবাসীকে মাতিয়েছে নানা স্বাদে। গত মাসে খাজানা নতুন ঠিকানায় (হাউস ৮, রোড ৫৩, গুলশান ২) নতুন আঙ্গিকে শুরু করে মেহমানদারি। কিন্তু করোনার কারণে সেই আতিথেয়তা না মিললেও মিলছে তাদের নানা স্বাদের নানা পদ।

default-image

বিশেষত এই রমজান মাসে খাজানা নগরবাসীকে উপহার দিচ্ছে রসনাবিলাসী ইফতার। নিজে গিয়ে দেখেশুনে অর্ডার করে যেমন কেনা যাচ্ছে, তেমনি রয়েছে হোম ডেলিভারির সুবিধা। ফলে বাড়িতে বসেও নেওয়া যাবে খাজানার ইফতারির আস্বাদ।

খাজানার প্রধান নির্বাহী অভিষেক সিনহা বলেন, ‘খাজানায় রোজা উপলক্ষে চালু করা হয়েছে ইফতার বাজার। সেখানে আছে রোল কাউন্টার, কাবাব কাউন্টার। সামনেই তৈরি করে দেব আপনার চাহিদামতো।’ এ ছাড়া খাজানার সব সময়ের ফেবারিট খাজানা কেসারিয়া জিলিপি, হালিম আর বিরিয়ানি তো আছেই। না, এখানেই তালিকা শেষ নয়। বরং রয়েছে আরও নানা স্বাদের সব পদ।

default-image

তবে অভিষেক জোর দিয়েই বললেন, ‘এই সময়ে কড়াকড়িভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খাজানা পরিচালিত হচ্ছে। যে কেউ এসে তো নিতেই পারবে। তবে আমি চাই সবাই যেন বাড়িতেই থাকেন আর হোম ডেলিভারির সুবিধা গ্রহণ করেন। এ জন্য যে কেউ খাজানা ফোন (০১৭১১৪৭৬৩৭৯) করতে পারেন। সময়মতো পৌঁছে যাবে চাহিদামাফিক ইফতারি, যা জমিয়ে উপভোগ করা যাবে প্রিয়জনদের সঙ্গে।’
ছবি: খাজানা

বিজ্ঞাপন
কেনাকাটা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন