সব

কবিতা

শোয়াইব জিবরানযাত্রা, মহিষ পিঠেমহিষ পিঠে চলেছি বহুকাল জল-জলাজঙ্গলা পেরিয়ে। আমি কি রাখাল তবে ছিলাম বাথানের,নাকি দূর কোনো গাঁয়েবদ হাওয়া লেগে অসাড় দেহ। লোকে দিয়েছে তুলেসাপে কাঁটা চাঁদ সওদাগর, মহিষডিঙায়। মনে নেই কিছু। শুধু একটু একটু লোকালয়...
১৯ জুলাই ২০১৯

কবিতা

দিলারা হাফিজসবুজ গলিয়েসবুজ গলিয়ে চোখের গোলক দুটোঢুকে গেল বনের গভীরে...পড়ন্ত সূর্যের গোধূলি আলো পিছু নিল...

প্রাচীন সংস্কৃত কবিতা

অমরুঅমৃতের স্বাদমেয়েটি চমকে উঠল, যখন পুরুষটি আচমকা কামড় বসাল তার অধরে।ক্রোধকম্পিত তর্জনী উঁচিয়ে আর্তকণ্ঠে মেয়েটি বলল...
অনুবাদ: নির্মলেন্দু গুণ মন্তব্য

গল্প কৃষ্ণপক্ষ অথবা আরেকটি অপেক্ষা

আজ আষাঢ়ের কত তারিখ, কিছুতেই মনে করতে পারছে না অরু। অসম্ভব বৃষ্টি নেমেছে। কুহক বাইরে গেছে। বৃষ্টি হলেই গলিতে পানি জমে যায়। ছেলেটার মোবাইলটা নষ্ট হয়েছে দুদিন আগে। সারাব সারাব করেও আর সারানো হয়নি। তাই...
ফাতেমা আবেদীন মন্তব্য

বাদাঘাটে, এই আষাঢ়ে

সুজন মিয়ার সন্তানভাগ্য খারাপ, কথাটা বাদাঘাটের দু-তিনজন বয়স্ক লোক বলে। জমি-জিরাত আছে, বাজারে একটা মনিহারি দোকানও আছে, স্ত্রীর স্বাস্থ্যও ভালো, কিন্তু একটা মাত্র ছেলে। সুজন মিয়া এ জন্য বুড়োদের, এমনকি...
সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম মন্তব্য

গল্পের সাইকেল আকাশে ওড়ে

মাঠের মাঝখানে বড় একটা হিজলগাছ। লোকটি বসে আছেন সেই গাছতলায়। শূন্যে ডান হাত এমনভাবে নাড়ছেন, যেন শিল্পীর হাত। আঙুলে ধরা তুলি। পাশে রঙের পাত্র, সামনে ক্যানভাস। তিনি ছবি আঁকছেন। ডান হাতে রঙের পাত্র থেকে...
ইমদাদুল হক মিলন

আধুনিক ছোটগল্পের আদি রূপ

বর্ষা এলেই পত্রপত্রিকার সাহিত্য সম্পাদকেরা গল্পলেখকদের অনুরোধ করেন, ‘একটা আষাঢ়ে গল্প দিন।’ আমি গল্প লিখি, কোনো কোনো আষাঢ় মাসে সাহিত্য সম্পাদকদের অনুরোধে আমাকেও আষাঢ়ে গল্প লিখতে হয়েছে।...
মশিউল আলম

কবিতা

দিলারা হাফিজসবুজ গলিয়েসবুজ গলিয়ে চোখের গোলক দুটোঢুকে গেল বনের গভীরে...পড়ন্ত সূর্যের গোধূলি আলো পিছু নিল তার,খোল-করতালসহ বেজে ওঠে মাটির খঞ্জনা,নবীন পাতাদের কোলাহলে বাজে আনন্দ-করতালি।শেকড়ের সঙ্গে...

অন্যমনস্ক হওয়ার হাওয়ায়

কালো বুড়িগঙ্গা ধুঁকছে। শিশুটাকে নিয়ে সন্ধ্যার পর পর এই এখানেই এসে দাঁড়ায় ত্রিদিব। তাও মাঝেসাঝে। সুত্রাপূর, ফরাশগঞ্জ পেরিয়ে বি কে দাস রোডের উল্টিনঞ্জ লেনের ঘাট। শর্ষিনা স মিল, ফরাশগঞ্জ কাষ্ঠ বিতান,...
শিবু কুমার শীল

প্রাচীন সংস্কৃত কবিতা

অমরুঅমৃতের স্বাদমেয়েটি চমকে উঠল, যখন পুরুষটি আচমকা কামড় বসাল তার অধরে।ক্রোধকম্পিত তর্জনী উঁচিয়ে আর্তকণ্ঠে মেয়েটি বলল পুরুষটিকে—স্টপ ইট! আমাকে যেতে দাও, বদমাশ।রাগে, ক্রোধে তার শরীরে জ্বর উঠে গেল।যখন...
অনুবাদ: নির্মলেন্দু গুণ মন্তব্য

দাগ

শহরের এই পাশটা এখনো গ্রামের মতো সুনসান। খুব একটা বাড়িঘর ওঠেনি। মূল সড়ক থেকে একটু ভেতরের দিকে গেলে চোখে পড়বে দু-একটা পাকা দালান। শেষ হয়নি সেগুলোর নির্মাণকাজও। কঙ্কালসদৃশ এসব ভবনের চারপাশ থেকে...
মিজানুর খান মন্তব্য

গল্প অপরাজেয়

কতক্ষণ হলো ডাকছি, শুনছ? পাশে ইরিনকে দাঁড়িয়ে হাত নাড়তে দেখে হেডফোনটা খুললাম। আমি ব্যস্ত। তুমি এই গেম নিয়ে সব সময় ব্যস্ত, তাহলে কথা কখন বলব? ব্যস, শুরু হয়ে গেল! আমি খেলতে বসলেই তোমাকে কথা বলতে...
আফসানা বেগম মন্তব্য

কবিতা

শিহাব সরকারআমার চোখ দিয়ে দ্যাখো, মা মণি(সদ্যপ্রয়াত কন্যা পূর্বার স্মৃতি) তোমার ছিল দেখার তৃষ্ণা, ছিলে মনভবঘুরেআমারও ছিল অন্তহীন পিপাসাযেখানেই গিয়েছ তুমিক্যাম্পাসে ঝিলের পাড়ে, নিঝুম সাজেকেরবনপথে,...

আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ কবিতা যাঁর নিয়তি

শিল্পসাহিত্যচর্চার ঝোঁক কারও কারও জন্য এক অনারোগ্য ব্যাধির মতো। ঘাপটি মেরে থাকে আর ভেতরে ভেতরে কুরে কুরে খায়। নিয়তির মতো, এ থেকে মুক্তি মেলে না। আবু জাফর ওবায়দুল্লাহর ক্ষেত্রেও কাব্যচর্চার বিষয়টি...
কুদরত-ই-হুদা

মুক্তিযুদ্ধের গল্প খোকাবাবুর প্রত্যাবর্তন

এই গল্পটি একা আমার পক্ষে লেখা সম্ভব ছিল না। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের রাইচরণকে সঙ্গে নিয়েছি।একবার ঝপ করিয়া একটা শব্দ হইল, কিন্তু বর্ষার পদ্মাতীরে এমন কত শব্দ শোনা যায়। রাইচরণ আঁচল ভরিয়া কদম্বফুল তুলিল।...
আন্দালিব রাশদী

কবিতা স্বাধীনতা শব্দটি আমাদের

স্বাধীনতার মাসে এ আয়োজনে কবিদের কবিতায় উপজীব্য হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বদেশের মুখ। মোহাম্মদ রফিক সেদিন ঘাটে কী ঘটেছিল?এমন দেখিনি, আজ কেন মাছ দলেবলেমা ছানা ও বাবা বড়ই চঞ্চল, খেলে হুটোপুটিউদ্বিগ্ন...

অগ্নিময় বাকু

ফেলুদার গল্পের সোনার কেল্লার মতোই ইশেরি শেহের পাতালরেলস্টেশন থেকে মিনিট দশেক দূরত্বে এক সোনার কেল্লার সন্ধান পাই আমি। বিকেলের পড়ন্ত রোদ কেল্লার দেয়ালে পড়ে ধাতব মুদ্রার মতো ঝিকমিক করে ওঠে। আর অদূরের...
সঞ্জয় দে মন্তব্য

গল্প তুমি

আষাঢ়-শ্রাবণ মাসটা হরবখত আকাশ কালিঝুলি হয়ে থাকে। এমনিতে মহানন্দা বড় খেয়ালি, কখনো সাপিনীর মতো লচক দিয়ে স্রোতের তোড়ে উড়িয়ে নিয়ে যায় নাও, কখনো গাভীন নদীতে চর জাগে আচমকা কোথাও। আমার তকদিরের মতোই।...
সাগুফতা শারমীন তানিয়া

পদাবলি

নুরুন্নাহার শিরীনশিখাময় কৃতাঞ্জলিতথাপি তাহার বেদনার অধিক জলের ভার;কে কবে তাহার বেঁধেছিল এপার–ওপার,কে কবে হঠাৎ পাশে বসেছিল বলেত্রিভুবনের বিভাজনের সুতো গেঁথেছিল জলে।হয়তো গাঁথুনি তত মজবুত নয়যত...

বইমেলার কবিতা ঝড়ের পরের আলো

যত দূর পারে দেখে নিতে থাকে চোখকোথা থেকে কে সে অপেক্ষা করে ডাকের,বিকেলের থেকে শোরগোল উঠে এলেসাথে নিয়ে আসে নিজস্ব নদীটাকে। হাঁটতে হাঁটতে হাঁপিয়ে উঠলে পরেবেঞ্চিতে বসে নানান আলাপ তোলে—কুয়াশায়...
মিছিল খন্দকার মন্তব্য
 
 
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৯
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
প্রগতি ইনস্যুরেন্স ভবন, ২০-২১ কারওয়ান বাজার , ঢাকা ১২১৫

ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৫৫০১২২০০, ৫৫০১২২১১ ইমেইল: info@prothomalo.com