default-image

আধুনিক জীবনে হিংস্রতার মুখোশকেই এবার উপন্যাসের বিষয় করলেন জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হরিশংকর জলদাস। আধুনিক ও প্রাচীন জীবনযাপনের সেতুবন্ধ নিয়ে বড়সড় পরিসরে লেখা উপন্যাসটির নাম ‘বাতাসে বইঠার শব্দ’। এটি বের করেছে প্রকাশনা সংস্থা প্রথমা।

উপন্যাসের কেন্দ্রে আছে চট্টগ্রামের শুঁটকি ব্যবসায়ী একটি পরিবার। চার পুরুষের বৃত্তান্ত এই উপন্যাস। শত বছর জুড়ে বিস্তৃত উপন্যাসটির অনেক বাঁক আর ঘটনার ঘনঘটা। চমকে ভরপুর উপন্যাসটির চরিত্রও অনেক। এ উপন্যাসে প্রতিবাদের প্রতীক হয়ে উঠেছে বইঠা। কিসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ? প্রতিবাদ হালদারবাড়ির যৌনতা ও স্বার্থপরতার বিরুদ্ধে। এই বাড়ির পরতে পরতে ব্যভিচার, ইটে ইটে জমাট বেঁধে আছে নারীর কান্না। এ সবকিছুর বিরুদ্ধে যুদ্ধে নেমেছে হালদারবাড়ির ছেলে সুব্রত। সে কি পারবে প্রপিতামহ, পিতামহ আর পিতার বিরুদ্ধে লড়ে জয়ী হতে? পারবে কি নারীর চোখের জলের শোধ নিতে? হরিশংকর জলদাসের কলমের মুনশিয়ানায় শেষ পর্যন্ত মুগ্ধ থাকবেন পাঠক।

বিজ্ঞাপন

‘বাতাসে বইঠার শব্দ’ সম্পর্কে কথাসাহিত্যিক হরিশংকর জলদাস বলেন, ‘২০২১-এর বইমেলায় উপন্যাসটি প্রকাশের পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু প্রথমে প্রথমার ও পরে আমার আগ্রহে দু-মাস আগে প্রকাশিত হলো উপন্যাসটি। আমি সাধারণত উপন্যাসের ভাষা ও বিষয়বৈচিত্র্যের দিকে সতর্ক থাকি। ক্রমাগত নানাভাবে আমার ভাষা বদলায়, বিষয় বদলায়। এ উপন্যাসে সেটা আরও বদলেছে।’

হরিশংকর জলদাস বলেন, ‘উপন্যাসের মূল কাহিনি চট্টগ্রামের একটি পরিবারকে ঘিরে, যারা চট্টগ্রামেই শুঁটকির ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। পরিবারটির আছে ব্যভিচার, হিংস্রতা ও নিষ্ঠুরতার ইতিহাস। এই পরিবারেরই এক ছেলে বুয়েট থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে বেরিয়েছে। এই নিষ্ঠুরতা ও হিংস্রতার বিরুদ্ধে সে বিদ্রোহ করে । তার এ যুদ্ধে বাধা আসে পরিবারের ভেতর ও বাইরে থেকে। সব বাধা পেরিয়ে সমস্ত অন্ধকারকে আলোর দিকে উন্মোচিত করতে থাকে ছেলেটি, যে এই উপন্যাসের কথকও।’

জনপ্রিয় এই কথাসাহিত্যিক আরও বলেন, ‘এ উপন্যাসের প্রাথমিক পটভূমি ঢাকার শাহবাগ, পরীবাগ। এর আগে আমার কোনো উপন্যাসে সেভাবে ঢাকা শহর আসেনি। “রঙ্গশালা” উপন্যাসে সামান্য একটু এসেছিল। তবে এখানে সেটা কিছুটা বিশদভাবে এসেছে। আধুনিক ও প্রাচীন জীবনযাপনের একটা সেতুবন্ধ রচনা করতে চেয়েছি। আধুনিক জীবনে হিংস্রতার যে মুখোশ, সে মুখোশ উন্মোচনের চেষ্টা করেছি। যাঁরা আমাকে পছন্দ করেন, আমার লেখা পছন্দ করেন, এ উপন্যাস তাঁদের মনে দাগ কাটবে বলে আমার বিশ্বাস।’

default-image

হরিশংকর জলদাসের জন্ম ৩ মে ১৯৫৩ সালে, চট্টগ্রামের উত্তর পতেঙ্গার জেলেপল্লিতে। জীবনের মধ্যবেলায় লিখতে বসা। প্রথম উপন্যাস ‘জলপুত্র’ লিখেছেন পঞ্চান্ন বছর বয়সে। প্রথমা প্রকাশন থেকে এর আগেও প্রকাশিত হয়েছে হরিশংকর জলদাসের উপন্যাস ‘রামগোলাম’, ‘মোহনা’, ‘আমি মৃণালিনী নই, ‘এখন তুমি কেমন আছ’, ‘সেই আমি নই আমি’, ‘রঙ্গশালা’, ‘সুখলতার ঘর নেই’; গল্পগ্রন্থ ‘মনোজবাবুদের বাড়ি’ এবং আত্মস্মৃতি ‘নোনাজলে ডুবসাঁতার’। পেয়েছেন একুশে পদক, বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, প্রথম আলো বর্ষসেরা বই পুরস্কার, আলাওল সাহিত্য পুরস্কার, ব্র্যাক ব্যাংক-সমকাল সাহিত্য পুরস্কারসহ নানা সম্মাননা।

‘বাতাসে বইঠার শব্দ’র প্রচ্ছদ করেছেন মাসুক হেলাল। বইটির গায়ের মূল্য ৩০০ টাকা। বইটি পাওয়া যাবে কারওয়ান বাজার ও শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে প্রথমার আউটলেটে। এ ছাড়া ঘরে বসে বই পেতে চাইলে অনলাইনে অর্ডার করতে পারেন prothoma.com থেকে। সরাসরি কল করতে পারেন ০১৯৮৮৩৩৭৭৩৩ নম্বরে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0