বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এমনই অনুসন্ধানী মন নিয়েই বেড়ে উঠছিলেন অমর্ত্য সেন। ‘সবার আমি ছাত্র’ কথাটি যেন তাঁর ক্ষেত্রেই খাটে। কারণ, তিনি কেবল অর্থনীতিবিদ নন, বহুমাত্রিক জ্ঞানে প্রজ্ঞাবান এক ব্যক্তিত্ব। দর্শন থেকে ইতিহাস, সাহিত্য, বিজ্ঞান, গণিত এবং অবশ্যই অর্থনীতি—সবই রয়েছে তাঁর আগ্রহের কেন্দ্রে। ফলে হোম ইন দ্য ওয়ার্ল্ড: আ মেমোরি নামে অমর্ত্য সেনের স্মৃতিকথায় এসব প্রসঙ্গ যে খুব ভালোভাবেই স্থান পেয়েছে, সেটা বলাই বাহুল্য।

প্রকাশনা সংস্থা পেঙ্গুইন থেকে ৪৮০ পৃষ্ঠার এই বই প্রকাশিত হয়েছে ৮ জুলাই। বহু প্রতীক্ষিত এ স্মৃতিকথায় অমর্ত্য সেনের জীবনের বিভিন্ন অধ্যায় অর্থাৎ ঢাকা থেকে শান্তিনিকেতন, কলকাতা থেকে কেমব্রিজ, মার্ক্স-কেনস-অ্যারো থেকে ১৯৪৩ সালের মন্বন্তর—এসব বিচিত্র ঘটনা উঠে এসেছে তাঁর কলমে।

default-image

স্মৃতিকথায় বাঙালি সংস্কৃতিকে চমৎকারভাবে উপস্থাপন করেছেন অমর্ত্য সেন। সেকালে হিন্দু-মুসলিম দ্বন্দের বাইরেও যে তাদের মধ্যে সম্প্রীতিমূলক একধরনের ভালোবাসার বন্ধন ছিল, সেটিও লিখেছেন তিনি। লিখেছেন সেন পরিবারের অনেক সদস্যের ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে যুক্ত থাকার কথা। বইয়ের অনেকটা অংশজুড়েই রয়েছে ব্রিটেন ও ইন্ডিয়ার সংঘাতময় সম্পর্কের বর্ণনা। বইটির জন্য এত দিন মুখিয়ে ছিলেন পাঠকেরা। অবশেষে করোনাকালে পাঠকদের হাতে পৌঁছাল অমর্ত্য সেনের স্মৃতিকথা হোম ইন দ্য ওয়ার্ল্ড: আ মেমোরি

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

গ্রন্থনা: অন্য আলো প্রতিবেদক

অন্য আলো থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন