default-image

হিংসা, দ্বেষ আর যুদ্ধের আবহ থেকে অনেক দূরে নূর ইনায়ত খানের জন্ম হয়েছিল মস্কোর ক্রেমলিনের অদূরে ভিসাকোপেত্রাভস্কি মনস্তিরে। তাঁর বাবা ইনায়ত খান ছিলেন একজন ভারতীয় সুফিসাধক। মা অ্যারা রে বেকার ছিলেন আমেরিকান স্বর্ণকেশী। ইনায়াত খান ছিলেন মহিশূর শাসক টিপু সুলতানের বংশধর। কিন্তু ঐশ্বর্যের অলিন্দে বেড়ে ওঠেননি নূর ইনায়াত। সুফি দর্শনের ঐতিহাসিক পরম্পরা ও বাবার সাহচর্যে ভারতীয় শাস্ত্রীয় সংগীতের সঙ্গে শৈশবেই পরিচয় ঘটে তাঁর। তবে মস্কোয় জন্ম হলেও এ শহরে বেশিদিন থাকেননি তাঁরা। সেখানে রাজনৈতিক অস্থিরতা বৃদ্ধি পেলে পরিবারটি চলে যায় প্যারিসে। আবার জার্মানরা যখন ১৯১৪ সালে কামান তাক করল প্যারিসের দিকে, তখন ইনায়াত খানের পরিবার পাড়ি জমাল লন্ডনে। জার্মানির হিটলারের কারণে বারবার ডেরা পাল্টাতে হয়েছে ইনায়াতের পরিবারকে। শৈশবের এই দুঃসহ স্মৃতি সম্ভবত ভুলতে পারেননি নূর। তাই যৌবনে তাঁকে ব্রিটিশ গুপ্তচর হিসেবে জার্মানির বিরুদ্ধে দুঃসাহসিক অভিযানে অংশ নিতে দেখা যায়। নূরকে পাঠানো হয় নাৎসি অধিকৃত ফ্রান্সে। রেডিও অপারেটর হিসেবে কাজ করার জন্য। নিশ্চিত মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে নূর নাৎসি বাহিনীর অবস্থান, সাধারণ মানুষের অবস্থা, যুদ্ধের নানা খুঁটিনাটি তথ্য ফ্রান্স থেকে ব্রিটেনে পাঠাতে পেরেছিলেন। কিন্তু নূরের ভাগ্য সুপ্রসন্ন ছিল না। ফ্রান্সে অবস্থানের অল্প কিছুদিনের মধ্যে তাঁর সহযোগী গুপ্তচরেরা প্রায় সবাই–ই ধরা পড়েন। কিন্তু নূর তাঁর দায়িত্ব ও কর্তব্যে ছিলেন অবিচল। প্রতিমুহূর্তে সমূহ বিপদকে মোকাবিলা করেছেন। আত্মগোপনে থাকার নির্দেশ অমান্য করেছেন। কারণ, প্যারিসে তিনিই তখন ছিলেন ব্রিটিশের পক্ষে একমাত্র রেডিও অপারেটর।

জার্মানদের তাড়ার মুখে একপর্যায়ে ছয়জন অপারেটরের কাজ একাই করছিলেন নূর। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। বিশ্বাসঘাতকতার শিকার হয়ে নাৎসি বাহিনীর হাতে ধরা পড়েন নূর ইনায়াত খান। তাঁর ওপর নেমে আসে নাৎসিদের চরম অত্যাচার। অমানুষিক নির্যাতনেও নিজের বিশ্বাসে অটল ছিলেন তিনি। জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত একটাও মিথ্যা বলেননি বা সতীর্থ কারও নাম ফাঁস করেনি। তাঁর বীরত্ব, আনুগত্য ও সংকল্পের স্বীকৃতি হিসেবে ব্রিটিশ সরকার তাঁকে জর্জ ক্রস খেতাবে ভূষিতে করে। ভালোবাসার ফ্রান্সও মনে রেখেছে এই ভারতীয় মুসলিম মেয়েকে। ফরাসিরা তাঁকে তাদের সর্বোচ্চ বেসামরিক, স্বর্ণতারকাখচিত ‘খোয়া ডে গেয়া’ খেতাবে ভূষিত করে।

নূর ইনায়াত খান বইটি আদতে জীবনীগ্রন্থ হলেও এটি অ্যাডভেঞ্চারে ভরপুর, রহস্যপোন্যাসের সুবাসে ভরা।

নূর ইনায়াত খান

গ্যাবি হ্যালবার্স্টাম

অনুবাদ: রওশন জামিল

প্রকাশক: প্রথমা প্রকাশন, প্রকাশকাল: অক্টোবর ২০২১, প্রচ্ছদ: মাসুক হেলাল, ১২৮ পৃষ্ঠা, দাম: ২২০ টাকা।

বইটি পাওয়া যাবে

prothoma.com এবং মানসম্মত বইয়ের দোকানে।

বইপত্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন