default-image

করোনার কারণে গত এক বছর ঘর থেকে বের হননি কবি মোহাম্মদ রফিক। এক বছর পর কিছুক্ষণের জন্য খোলা আকাশ দেখলেন তিনি টিকা নিতে গিয়ে।

বাংলাদেশে করোনা আসার আগে গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে নিজের গ্রামের বাড়ি বাগেরহাটের বৈপুর চিতলিতে গিয়েছিলেন মোহাম্মদ রফিক। ঢাকায় ফিরেছিলেন মার্চের প্রথম সপ্তাহে। এরপর করোনা মহামারি শুরু হলে আর ঘর থেকে বের হননি তিনি। এই এক বছরে তাঁর উত্তরার বাসায় আসেনি কোনো অতিথিও। ‘অন্য আলো’কে মোহাম্মদ রফিক বলেন, ‘করোনার কারণে আমি ঘর থেকে বের হইনি, মানে বাইরে বাসার নিচেও যাইনি। এমনকি আমার চোখের চিকিৎসা করা দরকার, সেখানেও যাওয়া হয়নি। তবে দিন সাতেক আগে বাড়ির পাশের হাসপাতালে একবার টিকা নিতে গিয়েছিলাম। আসলে এখন এমন হয়েছে যে বাইরে যেতে ভালো লাগে না।’

বিজ্ঞাপন

এই এক বছর ঘরবন্দী থেকে এন্তার লিখেছেন ষাট দশকের এই কবি। ছোট ছোট গদ্যের পাশাপাশি লিখেছেন কবিতা। বললেন, ‘এখন প্রতিদিনই আমি লিখি। পাণ্ডুলিপি তিন-চারটে হবে মনে হয়। তবে এ বছর আমার কোনো কবিতার বই বেরোবে না। কেবল পথিক পরান নামে আমার ব্যক্তিগত স্মৃতিলিপির দ্বিতীয় খণ্ড বেরোবে।’

ঘরের মধ্যে একাকী কী করেন, এমন প্রশ্নে মোহাম্মদ রফিকের জবাব, ‘এই এক বছরে চোখে সমস্যা আরও প্রকট হওয়ায় এখন পড়তে তেমন পারি না। তাই গান শুনি, লিখি আর কোন স্বার্থপর পৃথিবীতে বসবাস করে গেলাম, সেটা বোঝার চেষ্টা করি।’

অন্যান্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন