বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

লিভরারিয়া লেলো

পর্তুগালের এই বইয়ের দোকান ১১৫ বছরের পুরোনো। মাত্র এক হাজার বই নিয়ে ১৯০৬ সালে পর্তুগালের পোর্টু শহরে যাত্রা শুরু করেছিল দোকানটি। এটি শুধু একটি গতানুগতিক বইয়ের দোকানই নয়, এটি একটি কফি শপও বটে। কফির মগে চুমুক দিতে দিতে আপনি অনায়াসে আপনার পছন্দের বইটি খুঁজে নিতে পারবেন এখান থেকে।

default-image

ওয়ার্ড অন দ্য ওয়াটার

পানির ওপরে শব্দ—নাম থেকেই খানিকটা আন্দাজ করা যায় এই দোকানের বৈশিষ্ট্য। হ্যাঁ, ঠিকই ধরেছেন, এটি একটি ভাসমান বইয়ের দোকান। লন্ডনের রিজেন্টস খালের ওপর ভেসে আছে দোকানটি। প্রতিদিন শত শত মানুষ দোকানটি একনজর দেখার জন্য ভিড় করেন। চক্ষু শীতলকারী সৌন্দর্যের এ দোকান প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ১৯২০ সালে। সেই থেকে এখনো চলছে।

default-image

এভরিপিদিস বুক শপ

সক্রেটিসের শহর বলে পরিচিত যে শহর, সেই শহরে একটি অনিন্দ্যসুন্দর বইয়ের দোকান থাকবে, এটাই তো স্বাভাবিক। এভরিপিদিস বুক শপ গ্রিসের এথেন্স শহরে অবস্থিত। এর বয়সও কম নয়। ১৯৫৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এভরিপিদিস বুক শপ। এখন এটিই গ্রিসের সবচেয়ে বড় বইয়ের দোকানের স্বীকৃতি পেয়েছে।

default-image

লাইব্রেরিয়া অ্যাকুয়া আল্টা

লাইব্রেরিয়া অ্যাকুয়া আল্টা শুধু ইতালির সবচেয়ে সুন্দর বইয়ের দোকানই নয়, বিশ্বের অন্যতম সুন্দর একটি বইয়ের দোকান হিসেবেও পরিচিত। দোকানটি ইতালির ভেনিসে অবস্থিত। বই প্রদর্শনে নান্দনিকতার কারণে এটি এখন সারা পৃথিবীতে সমাদৃত।

সূত্র: প্যান ম্যাকমিলান

অন্যান্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন