একজন কবি, কয়েকটি কবিতা: ৮

অনুপম মণ্ডলের কবিতা

বিজ্ঞাপন
>
default-image
অনুপম মণ্ডলের কবিতার জগৎ পরাবাস্তবতার স্পর্শমাখা। তবে সেই জগৎ বাস্তবতা থেকে খুব দূরেরও নয়। কবিতার মধ্যে সুরের জাল বুনতে চান তিনি। বর্তমানে খুলনায় বসবাসরত এই কবির জন্ম ১৯৮৮ সালে। পেশায় তিনি শিক্ষক। এ পর্যন্ত তাঁর দুটি বই বের হয়েছে ‘ডাকিনীলোক’ এবং ‘অহম ও অশ্রুমঞ্জরি’ নামে। পেয়েছেন আবুল হাসান সাহিত্য পুরস্কার।

আলোকলতা

কবেকার পুরনো একটা হাওয়া এসে কাঁপায় স্বর্ণচাঁপার ডালপালা। ওই ভাঁটফুলের জঙ্গল। তার ভেতর থেকে একটি দুটি করে শ্যামাপোকা জেগে, আধফোটা চোখে তাকিয়ে দেখে, কোথাও সাপের শুকনো খোলস ঘিরে হেলে পড়ে অপরাহ্ণ। ঝিঙেফুল ঝরে যায় স্মৃতির মতো। আর জলের অতল তলে সেইখানে, ঘাই মারে মাছেরা।

দুই.
একটি চেনা সুর, তাঁর আঁখির সম্মুখে মেলে ধরে জিজ্ঞেস করলাম—দেখুন তো, পদগুলি মনে পড়ছে কি না? অলক্তের রেখা মুছে দিয়ে গেছে নিঃশব্দ শ্লোকরাশি। চিরদূর পথের পারে ঝরে পড়া তারার সোনালি, বুঝি, কেউ ধরে আছে, কুণ্ঠিত অঞ্জলিপুটে।

default-image

তিন.
আমি কি বাসনা হতে মুক্ত? ঝুঁকে পড়া যূথিকার ডাল ছুঁয়ে, দূরে কোথাও, নিচু হয়ে আছে একটা শঙ্খনাদ। কুঁচবন, নিমছায়া আর শীর্ণ বেতের লতা পেরিয়ে। নিঃসঙ্গ পুকুর পাড়ে। যেন-বা, ধুতরোর ঝোপে ফোঁটায় ফোঁটায় ঝিঁঝিদের কণ্ঠস্বর ঝরে পড়ছিল।

অন্য আলো অনলাইনে লেখা পাঠানোর ঠিকানা: info@onnoalo.com

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন