বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রথম আলোর প্রতিবেদন জানাচ্ছে, ‘ভিশন-২০২১ নীলফামারী’ নামে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটি মূলত প্রতিষ্ঠানের শৌচাগারে পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু করেছে। সংগঠনের ৬০০ কর্মী ১৬টি দলে বিভক্ত হয়ে স্বেচ্ছায় এ কাজ করছেন। গত রোববার জেলা শহরের ছমির উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ওই কর্মসূচি শুরু হয়। গত বুধবার পর্যন্ত তারা জেলা সদরের ২৮০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শৌচাগার পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করেছে। জেলা সদরের সরকারি-বেসরকারি প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, কলেজ ও মাদ্রাসা মিলে প্রায় সাড়ে ৪০০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কাজ করবেন তাঁরা।

জেলার শিক্ষা কর্মকর্তা ও শিক্ষকসমাজের মতে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শৌচাগার পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজে এগিয়ে আসা একটি ব্যতিক্রমী ও প্রশংসনীয় উদ্যোগ। সংগঠনটির প্রধান সমন্বয়ক ও সদর উপজেলার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ রহমান জানান, আজ থেকে প্রতিটি ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠানগুলোতে যাবেন তাঁরা। সেখানকার স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদেরও এ কর্মকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত করা হবে।

নীলফামারীতে নানা সামাজিক কর্মকাণ্ডসহ শিক্ষা-সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করছে ভিশন-২০২১। করোনাকালে সচেতনতা কার্যক্রম, খাদ্যসহায়তাসহ নানা কর্মসূচি নিতে সংগঠনটি মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছিল। এর সদস্যরা প্রত্যেকে বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। সংগঠনের পৃষ্ঠপোষক সদরের সাংসদ আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘তাঁদের নিয়ে আমি গর্বিত। ভবিষ্যতেও তাঁরা এমন সব ভালো কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকবেন, এটাই আমি আশা করি।’ করোনা মোকাবিলায় স্থানীয় তরুণসমাজ, রাজনৈতিক কর্মী নিয়ে জনপ্রতিনিধির এমন তৎপরতা দেশের অন্য সব জেলা-উপজেলার জন্য অনুসরণীয় উদ্যোগ হতে পারে। আমরা ‘ভিশন-২০২১ নীলফামারী’কে সাধুবাদ জানাই।

সম্পাদকীয় থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন