বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

খননের মাটি তীরে না ফেলে নদতটের অনেক ভেতরে ফেলা হচ্ছে। এ কারণে নদ কোথাও কোথাও সরু দুটি খালে পরিণত হয়েছে। দুই তীর তো আগেই দখল ছিল, মাটি ফেলে এবার মাঝখানটাও দখলের ব্যবস্থা করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। না হলে খনন করে সেই মাটিই আবার মাঝখানে ফেলার কী যুক্তি? মাঝখানটা যে দখল হবে, সে আলামতও পাওয়া যাচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দারা দুই খালের মাঝের জায়গায় পেঁপেসহ বিভিন্ন ধরনের গাছ লাগানো শুরু করে দিয়েছে। আর কিছুদিন গেলে এখানে একটি–দুটি করে বাড়িঘর উঠবে, বসবে দোকানপাট, সেগুলোর প্রয়োজনে একটু একটু করে বোজানো হবে নদ। আগে যেখানে দুই পাড় থেকে নদ ভরাট হচ্ছিল, মাঝখানে মাটি ফেলে এখন নদটাকে চার পাড় থেকেই ভরাটের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এভাবে শহরের অংশের পুরো নদটাই হয়তো ভরাট হয়ে যাবে, থেকে যাবে শুধু নামটা।

সম্পাদকীয় থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন