একসময় গ্রামগঞ্জে সমঝোতা বলে একটি জিনিস প্রচলিত ছিল। সবাই সম্মিলিতভাবে সমাজসেবামূলক যেকোনো কাজকর্ম করত। কিন্তু সময়ের বিবর্তনে ও রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতায় তা বিলুপ্তির পথে, যার কারণে গ্রামগঞ্জে দ্বন্দ্ব–সংঘাত সব সময় লেগেই থাকে। এখন একটি ক্ষুদ্র বিষয়কে রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ দিয়ে বিচার করা হয়। অযথা ক্ষমতার দাপট দেখানো হয়, যেখানে এর দরকারই নেই। ছোটখাটো ব্যাপার নিয়ে যুবকেরা প্রায়ই বলে, ‘আমি অমুক দলের নেতা, আমি অমুক পদপ্রাপ্ত, আমার বাবা অমুক দল করে’ ইত্যাদি ইত্যাদি।

 এ ধরনের উক্তি সংঘাতকে মীমাংসার পরিবর্তে আরও তীব্র করে তোলে, ছোটখাটো ব্যাপার আদালত পর্যন্ত চলে যায়। গ্রামের মাথারাও ক্ষমতার অপব্যবহার করে অনেক সময় নিরীহ মানুষদের জিম্মি করে রাখে। রাগ ও ক্ষোভের বশবর্তী হয়ে অনেকে খুন ও হত্যায় জড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে রাজনৈতিক কর্মীদের ক্ষমতার দাপটের কারণে শুধু দ্বন্দ্ব ও সংঘাতই সৃষ্টি হচ্ছে না, সামাজিক মূল্যবোধ ও নৈতিকতা হারিয়ে যাচ্ছে। তাই সমাজে যারা ক্ষমতার দাপট নিয়ে চলে, তাদের দলীয়ভাবে শাসন করতে হবে, সুষ্ঠু রাজনৈতিক পরিবেশে ফিরিয়ে আনতে হবে, মানুষ হত্যার রাজনীতি পরিত্যাগ করা শিখতে হবে। রাজনীতি করা মানুষদের এ দাপট দেশ ও দশের জন্য মঙ্গলজনক নয়।

মোহাম্মদ অঙ্কন

ঢাকা। 

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0