default-image

স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তাঁর দাবি, জিয়াউর রহমান ঘোষণা দিয়ে স্বাধীনতাযুদ্ধ শুরু করেছিলেন। আজ স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত হচ্ছে। সেই বিকৃত ইতিহাস সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে জানাতে হবে।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্‌যাপন উপলক্ষে বিএনপির পক্ষ থেকে গঠিত কমিটির বৈঠকে আজ শনিবার দুপুরে মির্জা ফখরুল ইসলাম এসব কথা বলেন।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের নুইয়ে পড়লে চলবে না। আমাদের ভবিষ্যৎ যে স্বপ্ন, সেটা আলোচনার মধ্য দিয়ে এগোতে হবে। সেই লক্ষ্যে আমাদের বিভিন্ন আলোচনা, বিভিন্ন প্রকাশনা, বিভিন্ন ডকুমেন্টেশনের মধ্য দিয়ে নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেওয়ার একটা সুযোগ অবশ্যই গ্রহণ করতে হবে।’

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্‌যাপনে গঠিত বিএনপির কমিটির প্রথম ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। এতে সভাপতিত্ব করেন কমিটির আহ্বায়ক ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন। বৈঠকে কীভাবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর উৎসব বছরব্যাপী করা যায়, তার কর্মকৌশল ও প্রস্তাবিত কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বিষয়ভিত্তিক প্রকাশনা, পোস্টার ও লিফলেট প্রকাশের সিদ্ধান্ত হয়।

বিজ্ঞাপন

বৈঠকে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতা মওদুদ আহমদ, জমির উদ্দিন সরকার, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, আবদুল্লাহ আল নোমান, শাহজাহান ওমর, আবদুল আউয়াল মিন্টু, বরকতউল্লাহ, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান, নিতাই রায় চৌধুরী, মনিরুল হক চৌধুরী, মিজানুর রহমান, মাহবুবউদ্দিন, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন, খায়রুল কবির, হাবিব–উন–নবী খান, সৈয়দ এমরান সালেহ, শ্যামা ওবায়েদ, শহীদ উদ্দীন চৌধুরী, মহিলা দলের আফরোজা আব্বাস, শ্রমিক দলের আনোয়ার হোসেইন, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদের ভূঁইয়া, মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান প্রমুখ। বৈঠক পরিচালনা করেন স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্‌যাপনে বিএনপি গঠিত জাতীয় কমিটির সদস্যসচিব আবদুস সালাম।

মন্তব্য পড়ুন 0