আজ বুধবার বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। ‘খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে জাতীয় ঐক্য ও অবিলম্বে অবৈধ সরকারের পদত্যাগ আজ সময়ের দাবি’ শীর্ষক এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, বিদেশ থেকে ধার করে যা খরচ করা হয়েছে, সেই সুদের টাকা দিতে গেলে দুই বছর পর চালের কেজি হবে ৩০০ টাকা। করের টাকার প্রভাব পড়বে বাংলাদেশের ওপর।

আওয়ামী লীগ সরকারের সঙ্গে সংলাপের প্রসঙ্গ টেনে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘শেখ হাসিনাকে সরে যেতে হবে। তাঁর সঙ্গে আলাপের কী আছে, আলাপ তো প্রতিদিনই হচ্ছে। তাঁরা তাঁদের কথা বলছেন, আমরা আমাদের কথা বলছি। আলাপ হচ্ছে না এটা? শেখ হাসিনা পদত্যাগ করলেই ফেয়ার নির্বাচন আশা করবেন না। (তবু) পার্লামেন্টকে মুক্ত করতে হবে।’ তিনি বলেন, বিএনপির মূল লক্ষ্য সরকারের অপসারণ। একটা ‘অনির্বাচিত সরকার’ দিয়ে রাষ্ট্র মেরামত, সংস্কার সম্পূর্ণ অসম্ভব।

শ্রীলঙ্কায় সরকার পতনের উদাহরণ টেনে গণ অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক রেজা কিবরিয়া বলেন, বাংলাদেশে সরকার পতন হলে আওয়ামী লীগ নেতাদের অবস্থা কী হবে, তা ধারণার বাইরে। শ্রীলঙ্কার একজন সংসদ সদস্য নিজের অস্ত্রের গুলি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। বাংলাদেশেও সংসদ সদস্যরা অস্ত্র চাইছেন। ভবিষ্যতে এগুলো তাঁদের কাজে লাগতে পারে।

বিরোধী দলগুলোকে একত্র হওয়ার আহ্বান জানিয়ে রেজা কিবরিয়া বলেন, সবাই অন্যদিকে তাকিয়ে থাকলে একটা একটা করে সব বিরোধী দলকে ধ্বংস করা হবে।
এ সময় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, আর্থিক ও সামাজিক দিক থেকে বাংলাদেশ এখন ডুবন্ত টাইটানিক। এখন উদ্ধারে যে এগিয়ে আসবে, সে ক্ষমতায় যাবে।

বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদিন বলেন, ওবায়দুল কাদের ইভিএমে ভোটের কথা বলার পরই নির্বাচন কমিশন জানাল, তা শুধু নির্বাচন কমিশনের বিষয়। আসলে তাঁরা আগে নিজেদের মধ্যে কথা বলে নিয়েছেন। বিএনপিকে নির্বাচনে নিতে উঠেপড়ে লেগেছে। বিএনপিকে ছাড়া আওয়ামী লীগ নির্বাচন করতেই পারবে না। তাদের পায়ের তলার মাটি সরে গেছে।

মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত বলেন, বিএনপির উচিত এখনই কর্মসূচি দেওয়া। এই একটি ঘোষণার জন্য ১২ থেকে ১৪ বছর ধরে অপেক্ষা করছেন দলের নেতা–কর্মীরা।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন