বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘ইলিয়াস আলীর স্ত্রীর (তাহসীনা রুশদীর) সঙ্গে কথা হচ্ছিল কিছুক্ষণ আগে। তিনি বললেন, তাঁর (ইলিয়াস আলী) ব্যাংক অ্যাকাউন্ট তাঁরা পরিচালনা করতে পারছেন না। তাঁর গাড়ির ট্যাক্স দিতে পারছেন না। তাঁর মেয়ের ভর্তির ব্যাপারে অনেক সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়েছে। অনেক কলেজ মেয়েকে ভর্তি করছিল না। এ বিষয়গুলো তাঁর পরিবারের কাছে একটা মর্মান্তিক যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাতে বনানীর রাস্তা থেকে ইলিয়াস আলী ও তাঁর গাড়িচালক আনসার আলীকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা তুলে নিয়ে যান। পরিত্যক্ত অবস্থায় গাড়িটি উদ্ধার করে পুলিশ। তবে ইলিয়াস আলী বা তাঁর গাড়িচালকের কোনো সন্ধান এখনো পাওয়া যায়নি।

ইলিয়াস আলীকে খুঁজে বের করতে সরকারের কোনো চেষ্টা নেই বলে অভিযোগ করেছেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, এটা খুব পরিষ্কার যে এই সরকারের দ্বারাই এটা (গুম) হয়েছে, সেই কারণে তারা উদ্যোগ নেয় না। গুম হওয়ার পর ইলিয়াস আলীর পরিবারের সদস্যরা বর্তমানে অনেক বিপদে দিন যাপন করছেন।

শুধু ইলিয়াস আলীর পরিবার নয়, গুম হওয়া ব্যক্তিদের পরিবারগুলো এমন নিদারুণ কষ্টের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন বলে উল্লেখ করেন বিএনপি মহাসচিব ফখরুল।

সম্প্রতি র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুজন নিহত হয়েছেন। এই প্রসঙ্গ তুলে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘এটা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার চার মাস পরে। এটার কারণ হচ্ছে, আমি যেটা মনে করি, র‌্যাবের যে চরিত্র তারা তৈরি করে দিয়েছে, সেই চরিত্রে সমস্যার সমাধান বলতে সেটাকেই মনে করে। সেভাবে বেআইনি সব অমানবিক মানবাধিকার লঙ্ঘন করে তারা কাজ করছে এবং করে যাবে।’

সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য এসব বাহিনীকে ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপির মহাসচিব। তিনি বলেন, এভাবে ব্যবহার করার পর তাদের বিরুদ্ধে কীভাবে ব্যবস্থা নেবে, কীভাবে তাদের শাস্তি দেবে অথবা তাদের আইনের আওতায় আনবে—এটা তারা করতে পারছে না। যেহেতু সরকার গুম করে, খুন করে, নির্যাতন করে ক্ষমতায় টিকে আছে, তাদের নিয়ে এসব অপকর্ম করছে, সে জন্য তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারছে না। তারা (সরকার) আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে জিম্মি হয়ে গেছে।

র‌্যাব ও বাহিনীর সাবেক-বর্তমান সাত কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে ভারতের কাছে সহযোগিতা চেয়েছে বাংলাদেশ। এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, সরকার ও আওয়ামী লীগ এতটাই দেউলিয়া হয়ে গেছে যে তারা জাতীয় সমস্যা সমাধানের জন্য ভারতকে অনুরোধ করতে চায়। এই সরকারের সেই মুখ নেই যে তারা এটা নিয়ে মানুষের কাছে দাঁড়াবে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পক্ষ থেকে ইলিয়াস আলীর পরিবারকে ঈদ উপহার পৌঁছে দেন মির্জা ফখরুল। এ সময় দলের যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন, সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি কাইয়ুম চৌধুরী ও চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান উপস্থিত ছিলেন।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন