বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মাহী বি চৌধুরী বলেন, রাষ্ট্রপতির কাছে তিনটি প্রস্তাব দিয়েছেন তাঁরা। প্রস্তাবগুলো হলো নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলো সার্চ কমিটির কাছে নির্বাচন কমিশনের জন্য একজন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও একজন কমিশনারের নাম প্রস্তাব করবে। প্রস্তাবিত নাম থেকে সার্চ কমিটি প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের জন্য রাষ্ট্রপতির কাছে নাম প্রস্তাব করবে এবং সার্চ কমিটি গঠনের জন্য বিকল্পধারা বাংলাদেশ দেশের তিন বিশিষ্ট নাগরিকের নাম সুপারিশ করছে।

মাহী বি চৌধুরী আরও বলেন, রাষ্ট্রপতিকে তাঁরা বলেছেন, শিগগিরই বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। এ জন্য নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। কিন্তু এই স্বল্প সময়ে নির্দিষ্ট আইন প্রণয়ন করা হয়তো সম্ভব নয়। এ কারণে সার্চ কমিটি গঠনের মাধ্যমে প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ দেওয়ার বিকল্প পন্থাকে তাঁরা স্বাগত জানান।

তবে নির্বাচন কমিশন গঠনে প্রয়োজনীয় আইন প্রণয়নের প্রস্তাবও দিয়েছে বিকল্পধারা। এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মাহী বি চৌধুরী বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন গঠনে স্থায়ী আইন করতে সময় লাগতে পারে। তাড়াহুড়া করে নির্বাচন কমিশন গঠন করতে গিয়ে বিতর্কিত আইন হলে নির্বাচনী ব্যবস্থা আবার বিতর্কের মধ্যে আসতে পারে। তা ছাড়া এমন আইন করতে গেলে সব দলের সমন্বয় প্রয়োজন। এ জন্য বিকল্প প্রস্তাব হিসেবে সার্চ কমিটি গঠনের কথা বলেছি। যেহেতু নির্বাচন কমিশনের মেয়াদও শেষ হয়ে যাচ্ছে, এ ক্ষেত্রে সাংবিধানিক শূন্যতা যাতে সৃষ্টি না হয়, সে জন্য সার্চ কমিটির মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠনের কথা বলা হয়েছে।’

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন