default-image

সরকারকে ক্ষমতার মসনদ থেকে নামাতে একটি সুযোগের অপেক্ষায় আছেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেন, ‘শুধু একটা সুযোগ, একটা পরিবেশের অপেক্ষায় আছি। একটি গণজাগরণের মধ্য দিয়ে এই সরকারকে বিদায় করে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় আমরা বদ্ধপরিকর। গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা হলে আমাদের নেতা তারেক রহমান দেশে ফিরে আসতে পারবেন।’

দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে আজ শুক্রবার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে উপজেলা বিএনপির এক আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এসব কথা বলেন।

গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘আমাদের নিষেধ আছে, যাঁর জন্মদিন পালন করছি, স্বয়ং তাঁর পক্ষ থেকেও আহ্বান আছে কেক না কাটার। দোয়া এবং পারলে গরিবদের মধ্যে কিছু সহায়তাসামগ্রী দেওয়া। কিন্তু আবেগ তো এই নিষেধ মানে না। আজকে কম করে হলেও ১০ হাজার কেক কাটা হবে। কারণ, আবেগের জায়গায় বাস্তবতা পরাজিত হয়।’
গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘আমাদের নেতা তারেক রহমান অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন।

আপনাদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে তিনি যে নির্দেশনা দিচ্ছেন, আশা করব, আপনারা তাঁর সঙ্গে প্রতারণা করবেন না। তাঁকে মিথ্যা বলবেন না এবং তাঁকে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সহযোগিতা করবেন।’
বক্তব্য শেষে ৫৬ পাউন্ডের একটি কেক কেটে তারেক রহমানের জন্মদিন উদ্‌যাপন করেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

বিজ্ঞাপন

কেরানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি নিপুণ রায় চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ফজলুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা সরাফত আলী, সাবেক ফুটবলার আমিনুল ইসলাম, ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি দেওয়ান সালাউদ্দিন বাবু প্রমুখ।

এর আগে সকালে নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিএনপির উদ্যোগে তারেক রহমানের ৫৬তম জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

১৯৬৫ সালের ২০ নভেম্বর বগুড়ার বাগবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন তারেক রহমান। এ বছর দিবসটি উপলক্ষে দলের দোয়া মাহফিল ছাড়া আনুষ্ঠানিক কোনো কর্মসূচি নেই। তারেক রহমানের দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ মোনাজাত হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন ওলামা দলের আহ্বায়ক শাহ নেছারুল হক।

কেন্দ্রীয় দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহর পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমান উল্লাহ বক্তব্য করেন। দোয়ায় অংশ নেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শামসুজ্জামান দুদু, হাবিবুর রহমান, মজিবুর রহমান সারোয়ার, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান প্রমুখ।

এ ছাড়া সাভারে ঢাকা জেলা যুবদলের উদ্যোগে কেক কাটেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন।

মন্তব্য পড়ুন 0