বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কুশপুত্তলিকা দাহ করার আগে রাজু ভাস্কর্যে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ সমাবেশ হয়। সমাবেশে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান বলেন, মোয়াজ্জেম হোসেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়েছেন। আলালেরা মুক্তিযুদ্ধের সময় কোথায় ছিলেন? ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা আছেন বলেই দেশে জঙ্গিবাদ তৈরি হচ্ছে না। ছাত্রলীগের কারণেই মানুষ শান্তিমতো ঘুমাতে পারে।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বক্তব্য দেন। এরপর মোয়াজ্জেম হোসেনের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

এর আগে গত মঙ্গলবার রাতে মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে রাজধানীর শাহবাগ থানায় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে একটি মামলার আবেদন করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির আইনবিষয়ক সম্পাদক ফুয়াদ হোসেন শাহাদাত। ওই দিন সন্ধ্যায় এক ছাত্রলীগ কর্মীও মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলার আবেদন করেন। দুটি আবেদনই পুলিশ সাধারণ ডায়েরি (জিডি) হিসেবে গ্রহণ করেছে।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন