default-image

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জাতীয় সংসদ সচিবালয়। একই সঙ্গে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদেরকে বিরোধীদলীয় উপনেতা হিসেবেও প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এরশাদের উপ প্রেস সচিব খন্দকার দেলোয়ার জালালী আজ বুধবার বিকেলে বাসসকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে বিরোধীদলীয় নেতা এবং পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় উপনেতা হিসেবে আজ বিকেলে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।’

এর মধ্য দিয়ে ১৯৯১ সালে সংসদীয় গণতন্ত্রে উত্তরণের পর এই প্রথম জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে কোনো নারীকে দেখা যাবে না। ১৯৯১ সালে পঞ্চম জাতীয় সংসদ থেকে শুরু করে বিদায়ী দশম সংসদ পর্যন্ত বিভিন্ন সময় আওয়ামী লীগের প্রধান শেখ হাসিনা, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

আজ জাতীয় সংসদের স্পিকারের আদেশক্রমে সংসদ সচিবালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব জাফর আহমেদ খান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, জাতীয় সংসদে সরকারি দলের বিরোধিতাকারী সর্বোচ্চসংখ্যক সদস্য নিয়ে গঠিত সংসদীয় দলের নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে (রংপুর-৩) জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালি বিধি অনুযায়ী বিরোধী দলের নেতা ও লালমনিরহাট-৩ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ কাদেরকে বিরোধীদলীয় উপনেতা হিসেবে স্পিকার স্বীকৃতি প্রদান করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে মহাজোট ২৮৮ আসনে জয়ী হয়। এর মধ্যে জাতীয় পার্টির রয়েছে ২২টি আসন। একাদশ জাতীয় সংসদে মহাজোটের অংশীদার জাতীয় পার্টিকে (জাপা) বিরোধী দল ঘোষণা দিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে গত ৫ জানুয়ারি সংসদের স্পিকারকে চিঠি দেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

বিজ্ঞাপন
রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন