বিজ্ঞাপন


হারুনের বক্তব্য শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই সংসদের ফ্লোর নেন। তিনি দাঁড়িয়ে বলেন, প্রযুক্তি এখন অনেক এগিয়ে গেছে। তাঁর কাছে একটি ফোনালাপ আছে। তিনি সেটা শোনাতে চান। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের মুঠোফোন থেকে সম্প্রতি ফাঁস হওয়া একটি ফোনালাপ চালু করেন। মুঠোফোনটি মাইকের সামনে ধরে তা সবাইকে শোনান। রেকর্ড শোনানোর পর এবং প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সময় উপস্থিত সরকারি দলের সদস্যরা টেবিল চাপড়ে সমর্থন জানান।


পরে সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপির সাংসদ হলেও হারুনকে প্রথম সারিতে বসানো হয়েছে। তিনি অনেক কথা বলেন। কিন্তু নিজের দল সম্পর্কে তথ্য জেনে তারপর হারুনের কথা বলা উচিত ছিল।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, কারা গাড়িতে আগুন দিয়েছে, সে ছবিও তাঁর কাছে আছে। একটি মিছিল শেষে দেশলাই দিয়ে বাসে আগুন দেওয়া হয়েছে। আরও ফোন রেকর্ড আছে। সিসিটিভি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে, কারা আগুন দিয়েছে। তিনি বলেন, বিএনপি গাড়ি পোড়ানোর জন্য সরকারের এজেন্টদের দায় দিচ্ছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থেকে কেন গাড়িতে আগুন দিয়ে বদনামের ভাগীদার হবে? জনগণের নিরাপত্তা দেওয়াই সরকারের দায়িত্ব।


সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেন, সংসদ পবিত্র জায়গা। এখানে এভাবে অসত্য তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত না করাই ভালো। তিনি বিএনপিকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধ করার এবং নির্বাচন করলে তা ভালোভাবে করার আহ্বান জানান।

রাজনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন